বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১১:০২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

দামুড়হুদার লোকনাথপুর গ্রামে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা : শ্বাশুড়ি আটক : স্বামী জাহান আলী পলাতক

জয়রামপুর (দামুড়হুদা) প্রতিনিধি:
দামুড়হুদার লোকনাথপুর গ্রামে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী। হত্যাকাণ্ডের নিহত গৃহবধু নুরজাহান খাতুন (৪২) দু’সন্তানের জননী।
জানা গেছে, দামুড়হুদা উপজেলার লোকনাথপুর গ্রামে গত বুধবার বিকালে মৃত জমিরের ছেলে জাহান আলী তার নিজ স্ত্রী নুরজাহানকে (৪২) পিটিয়ে এই জঘন্য হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটিয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর থেকে স্বামী জাহান আলী পলাতক রয়েছে। তবে শাশুড়িকে আটক করেছে দামুড়হুদা থানা পুলিশ।
নিহত গৃহবধুর শরীরের সমস্ত জায়গায় নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে। মাথায় ও চোখে নির্মমভাবে আঘাত করা হয়েছে। শনিবার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করেছে। লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই সুন্নত আলী বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ে করেছে।
নিহতের মা রহিমন বেগম অভিযোগ করে বলেন, তার মেয়েকে প্রায়ই নির্যাতন করতো জামাই ও তার শাশুড়ি। এর আগে একবার আমার মেয়েকে তালাক দিয়েছিল। দু’টি সন্তানের কথা ভেবে আবারও সংসার পাতিয়ে দেয় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা। আমার জামাই আমার মেয়েটাকে প্রতিদিন মারধর করতো।
ইউপি সদস্য রিকাত আলী বলেন, গত রাতে সদর হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিল গৃহবধু নুরজাহানকে। এরপর সেখানে ভোর ৪ টার দিকে মারা যায়।
এলাকা সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার বিকালে জাহান আলীর ছেলে জামিরুল ৫ম শ্রেণীর ছাত্র। ওই দিন প্রাইভেট পড়তে না যাওয়াই জামিরুলের মা নুরজাহান ছেলেকে বকাবকি করতে থাকে। এ সময় জামিরুলের পিতা জাহান আলী ছেলেকে বকাবকি করতে দেখাই জামিরুলের মা নুরজাহানকে বেধড়ক মারপিট করে। এরই এক পর্যায়ে নুরজাহান আহত হয়ে বাড়ীতে পড়ে থাকে। নুরজাহানের অবস্থা বেগতিক দেখে পরে তারা গত শুক্রবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। গতকাল শনিবার ভোর ৪টার দিকে নুরজাহান মারা যায়। গতকাল শনিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সিনিয়র সার্কেল এসপি (দামুড়হুদা/জীবননগর) মোহাম্মদ আবু রাসেল।
দামুড়হুদা মডেল থানার আব্দুল খালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিক তদন্তে নিহত গৃহবধুর শরীরের সমস্ত জায়গায় নির্যাতনের চিহ্ন মিলেছে। মাথায় ও চোখে নির্মমভাবে আঘাত করা হয়েছে। আমরা সুরতহাল রিপোর্ট করেছি। এ ঘটনায় নিহতের ভাই সুন্নত আলী বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। গতকাল আটককৃত আসামি কে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

আনারুল ইসলাম

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com