বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

মাকে হত্যার পর সুইসাইড নোট লিখে ছেলের আত্মহত্যা

অনলাইন  ডেস্ক: বেকারত্বের কারণে হতাশায় ভুগছিলেন ২৫ বছর বয়সী এক যুবক। সেই হতাশা থেকেই মাকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেন তিনি। রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) ভারতের দিল্লির রোহিনী এলাকায় নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করেন খিতিজ নামের ওই যুবক। তার মায়ের নাম মিথিলেশ বলে জানিয়েছে পুলিশ। মিথিলেশ বিধবা ছিলেন।

দিল্লি পুলিশ জানায়, দু-তিনদিন আগে ওই যুবক তার মাকে হত্যা করেন এবং তার মরদেহ পাওয়া যায় বাড়ির বাথরুমের মধ্যে। আর রোববার আত্মহত্যা করেন খিতিজ। খবর এনডিটিভির।

রোহিনীর ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (ডিসিপি) প্রণব তায়াল জানান, রোববার রাত ৮টার দিকে মিথিলেশ-খিতিজের বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ পেয়ে পুলিশ কন্ট্রোল রুমে (পিসিআর) ফোন করেন প্রতিবেশীরা। তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে পৌঁছে মূল দরজা ভেতর থেকে আটকানো দেখতে পান। পরে পুলিশ সদস্যরা বাড়ির বারান্দা থেকে ঘরে ঢুকে রক্তাক্ত অবস্থায় এক যুবকের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। আর এক নারীর মরদেহ পাওয়া যায় বাথরুমে। তার শরীরে পচন ধরে গিয়েছিল।

ডিসিপি বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলে খিতিজের লেখা প্রায় ৭৭ পৃষ্ঠার একটি সুইসাইড নোট পেয়েছি। সেখানে সে বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) তার মাকে খুন করেছে বলে স্বীকার করেছে। পরে ছুরি দিয়ে নিজের গলা কেটেছেন খিতিজ। অপরাধ তদন্ত টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে ও ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান, সুইসাইড নোটে বেকারত্বের কারণে ‘বিষণ্ণতায়’ ভোগার কথা উল্লেখ করেছেন খিতিজ। এ কারণেই তিনি তার জীবন শেষ করে দিতে চেয়েছিলেন বলেও উল্লেখ আছে চিঠিতে।

দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, এখনও সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি। পরিবারটির বিষয়ে আরও তথ্য জানতে স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com