বুধবার, ০৬ Jul ২০২২, ০৪:১৭ পূর্বাহ্ন

নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া নির্বাচন কমিশন যেই থাকুক তার দ্বারা সুষ্ঠ নির্বাচন সম্ভব না – মির্জা ফখরুল

 

সাইমন হোসেন, ঠাকুরগাঁও

দলীয় সরকারের অধীনে বাংলাদেশের যে রাজনৈতিক সংস্কৃতি এই সংস্কৃতিতে কখনো অবাধ সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করা সম্ভব নয়। এখানে নির্বাচনকালীন সময় একটি নিরপেক্ষ সরকার খুব প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, এই দেশতো এখন কোন সভ্য গণতান্ত্রিক দেশ না, দেশকে বর্বর, অসভ্য রাষ্ট্রে পরিণত করেছে আওয়ামী লীগ সরকার। যার ফলে বাংলাদেশ একটি ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে।

বুধবার (১৫ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়ি নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, কুমিল্লার নির্বাচনে ইসি ব্যর্থ হয়েছে। একজন সংসদ সদস্যকে কুমিল্লা থেকে বের করতে না পেরে নিজের ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তাহলে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নির্বাচন কি হবে? প্রথমেই নির্বাচন কমিশন দেখালো তার ক্ষমতা নেই, সেই নির্বাচন কমিশন কিভাবে সংসদ নির্বাচন পরিচালনা করবে। এই সরকার তো অনেক আগেই নির্বাচন ব্যবস্থা সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিয়েছে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালের বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রী তো অনেক কিছুই করতেছেন। যেগুলোর সাথে আইন, সংবিধান, নৈতিকতার কোনও সংযোগ নেই। তিনি পাচার করা টাকার বৈধতা চেয়েছেন পার্লামেন্টে। তারা টাকা পাচার করছেন আবার তা ফিরিয়ে আনতে আইন তৈরি করছেন। দেশটা লুটপাট করছে আওয়ামী লীগ।

বর্তমান সরকারের অধীনে কোন নির্বাচনে যাবে না বিএনপি উল্লেখ করে তিনি বলেন, নির্বাচন ব্যবস্থাকে এই সরকার এমন জায়গায় নিয়ে গেছে যে মানুষ এখন ভোট দিতে পারে না। ভোট দিলেও এখন গণনার সময় রেজাল্ট পরিবর্তন হয়ে যায়। সেজন্য আমরা এই সরকারের আওতায় কোন নির্বাচনে যাবো না। আমরা প্রতিবাদ জানাচ্ছি, আপত্তি জানাচ্ছি না শুনলে আমরা আন্দোলনে যাবো।

এসময় অন্যান্যের মতো আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল আমিন, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তারিক আদনান, যুব দলের সভাপতি মোহেবুল্লাহ আবু নুর চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান তুহিন সহ জেলার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com