মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন

দর্শনা পবিত্র মাহে রমজানের শুরুতেই বিদ্যুতের লোডশেডিং

 

সুরাইয়া পারভীন সাথী, দর্শনা থেকেঃ চুয়াডাঙ্গার দর্শনাতে
পল্লি বিদ্যুতের বারবার লোডশেডিংয়ের কারণে চরম ভোগান্তি ও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন দর্শনা থানা এলাকার জনসাধারণ। রমজান মাসে বিদ্যুতের লোড শেডিং হওয়ায় ভোগান্তির যেন শেষ নেই। বিশেষ করে তারাবির নামাজের কিছুক্ষণ আগে চলে যায় এবং নামাজ শেষে আসে। এ ছাড়াও ইফতারের ও যোহরের নামাজের পুর্বেই বিদ্যুৎ চলে যায়।

বরাবরই সব বছরে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের রমজান মাসে ইফতার, তারাবি নামাজ ও সাহরির সময় লোডশেডিং না দেওয়ার নির্দেশ থাকে। কিন্তু এরপরও চুয়াডাঙ্গার দর্শনা থানা এলাকায় রমজানের প্রথম দিন থেকেই পল্লি বিদ্যুতের বারবার লোডশেডিংয়ের কারণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন জনসাধারণ। তারাবির নামাজের সময় বিদ্যুৎ না থাকায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন বিভিন্ন এলাকার মুসল্লিরা। এ দিকে অনেক বিদ্যুৎ গ্রাহক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এবং জাতীয় দৈনিক আলোচিত কণ্ঠ কে জানান গত দু-তিন দিনে তারাবির নামাজের আগে বিদ্যুৎ চলে যায় এবং নামাজ শেষে আসে। এ ছাড়াও ইফতারের সময় ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গেই বিদ্যুৎ চলে যায়। ফলে গরমে নামাজ পড়া দুঃসহ হয়ে ওঠে। ইফতার ও তারাবির সময় লোডশেডিং না করার আহ্বান জানান এলাকাবাসী।

রমজান মাসে ঘনঘন লোডশেডিং এর কারণে দর্শনা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মেহমুদুল হক বলেন,
মেশিনারিজ কারণে যদি কোন বিদ্যুৎ বিভ্রাট ঘটে তাহলে আমার কোন কথা নেই, তবে পল্লী বিদ্যুতের প্রয়োজনে এবং নিয়মে যদি কোন লোডশেডিং করা হয় সেটা রোজাদারদের রমজান মাসে ইফতার ও তারাবির সময় অবশ্যই গ্রহণ যোগ্য নয়।

এ বিষয়ে দর্শনা পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম মোঃ শামিম উদ্দীন জানান, বিদ্যুৎ রিজার্ভ করে রাখার জিনিস নয়, তাই একযোগে যখন দেশে বিদ্যুতের প্রয়োজন হয় তা মেটাতে না পারার কারণে তখন লোডশেডিং হচ্ছে। তবে তিনি আরও জানান, খুবই দ্রুত ১-২ দিনের মাঝেই উক্ত সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 dailyamaderchuadanga.com