মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন

মেহেরপুরে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ধর্ষন মামলার পলাতক আসামির আদালতে আত্মসমর্পণ

ধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি রশিদ রায় হওয়ার ১৬ বছর পর আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। আব্দুর রশিদ মেহেরপুর সদর উপজেলার কালিগংনী গ্রামের বশির মণ্ডলের ছেলে।

২০০২ সালের ৫ আগষ্ট রশিদ তার প্রতিবেশী ভ্যান চালক আনছার আলীর বাড়ি প্রবেশ করে সেখানে তার ৮ বছর বয়সী মেয়েকে মুখ চেপে ধরে বাড়ি থেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ওই রাতে তার অবস্থার অবন্নতি হল তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই ঘটনায় আনসার আলী বাদী হয়ে মেহেরপুর সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইবুনাল আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ৯ (১) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় ৮ জন সাক্ষী তাদের সাক্ষ্য প্রদান করেন। মামলায় রশিদ দোষী প্রমাণিত হওয়ায় ২০০৬ সালের ৮ মার্চ তৎকালীন মেহেরপুর জেলা ও দায়রা জজ, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুল হামিদ আসামির রশিদকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ১০ হাজার টাকা জরিমানা। অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেন। ওই সময় থেকে আসামি রশিদ পলাতক থাকেন। দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছর পলাতক থাকার পর রবিবার দুপুরের দিকে মেহেরপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের বিচারক মোঃ তহিদুল ইসলামের আদালতে আত্মসমর্পণ করলে। বিজ্ঞ আদালত তাকে কারা

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 dailyamaderchuadanga.com