বুধবার, ০৬ Jul ২০২২, ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন

আইভির ভরসা ভাসমান ভোটার, তৈমুরের বিশেষ মহল

ফাইল ছবি


অনলাইন ডেস্ক:

নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের ভোট আগামীকাল রবিবার (১৬ জানুয়ারি)। প্রার্থীদের প্রচার শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) মধ‍্যরাতে শেষ হয়েছে। ভোটের হিসাবে এখন চলছে চুলচেড়া বিশ্লেষণ। প্রার্থীরা গণমাধ্যমে কথা বলছেন। কারো কারো দাবি, এক লাখ ভোটের ব‍্যবধানে জিতবেন তারা। এক্ষেত্রে নৌকার প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভি এবং হাতি প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার দুজনের বক্তব্যই অভিন্ন।

বিগত দুটি সিটি ভোটের হিসাব থেকে একটু ভিন্ন আমেজ তৈরি হয়েছে এবারের নির্বাচনী আবহে। আইভি টানা ক্ষমতায় থাকার কারণে উন্নয়ন দৃশ‍্যমান। এই উন্নয়ন সাধারণ মানুষের কাছাকাছি নিয়ে গেছে চুনকা বিনতে আইভিকে। পাশাপাশি ক্ষমতাসীন একটি পরিবারের রোষানলে চাপা ক্ষোভের বিরুদ্ধে সোচ্চার কণ্ঠস্বর আইভি। ভোটে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে তার এই ভাবমূর্তিকে এগিয়ে রাখছেন নারায়ণগঞ্জের এক শ্রেণির মানুষ। এছাড়া ভাসমান ব‍্যবসায়ীদের একটি বড় অংশ নগরমাতার আশ্রয়ে নির্বিঘ্নে ব‍্যবসা চালিয়ে যাওয়ায় তাদের ভোটকেও আইভির জয়ে বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন ব‍্যবসায়ীরা। নারায়ণগঞ্জ সিটি এলাকায় মোট ৫ লাখ ১৭ হাজার ভোটারের মধ্যে ভাসমান ভোটার দেড় লাখ। বিশাল অংকের এই ভোট আইভির বিজয়কে আরো ত্বরান্বিত করবে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের।

অপরদিকে, ধানের শীষ প্রতীক ছেড়ে স্বতন্ত্র ব‍্যানারে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় নিজ দল ও জোটের ভোটে একক প্রার্থী তিনি। পাশাপাশি যারা ক্ষমতাসীন দলের হয়েও কোনঠাসা- ওই শ্রেণির মানুষ বিএনপি থেকে অব্যাহতি পাওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থীর হাতি মার্কাকে বেছে নেবেন। এক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছেন তৈমুর আলম খন্দকার।

তাছাড়া আইভি ও ওসমান পরিবারের অভ‍্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব এখন প্রকাশ‍্যে। তাই রবিবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত এ দ্বন্দ্ব বহাল থাকলে তাদের বলয়ের ভোট স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে যাবে- এ সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

এছাড়া রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের উপর দমন-পীড়ন ও বর্তমান ক্ষমতাসীনদের টানা ক্ষমতায় থাকার কারণে জনপ্রিয়তা হ্রাস থেকেও স্বতন্ত্র প্রার্থী অ‍্যাড তৈমুর ভোটে এগিয়ে রাখছেন ভোটাররা। অন্যদিকে, গত সিটি নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় দলীয় সিদ্ধান্তে প্রার্থিতা প্রত‍্যাহার ইস্যুতে সাধারণ ভোটারদের কিছুটা অনুকম্পা পাবেন তৈমুর আলম। এক্ষেত্রেও আইভির ভোটে ভাগাভাগি হতে পারে বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জবাসী।

এদিকে, আইভির দায়িত্বে থাকাকালীন ব‍্যাপক উন্নয়ন ও ঘরে ঘরে গিয়ে মানুষের দুঃখ-দুর্দশায় পাশে থাকায় একটি অংশের আস্থার প্রতীক হয়েছেন তিনি। সঙ্গে উন্নয়নের প্রতীক ‘নৌকা’র একক প্রার্থী।

অন‍্যদিকে তৈমুর আলমের দলীয় ঐক‍্য এবং স্থানীয় প্রভাবশালী পরিবারের অভ‍্যন্তরীণ সমর্থন। এছাড়া আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস‍্যদের পক্ষপাতনীতি নারায়ণগঞ্জ সিটির মানুষের একটি পক্ষ তৈমুরের প্রতি সহমর্মিতা থেকে ভোটে জয় তাকে স্বপ্ন দেখাচ্ছে। তিনি বলেছেন, যত দমন পীড়ন চলছে, ততই মানুষের মধ্যে ঐক্য সৃষ্টি করছে। এতে তার জয় অবশ‍্যম্ভাবী।

তবে নানা সমীকরণ এবং প্রশাসনের নিরপেক্ষ অবস্থানে থেকে সুষ্ঠুভাবে ভোট হলে যিনি জয়ী হন, ব‍্যবধান কমবে এ নিয়ে সিটির প্রতিটি মানুষ বলা যায় একমত।

ভোট সুষ্ঠু করার ঘোষণা দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) জায়েদুল আলম। তিনি বলেন,

কঠোর নিরাপত্তায় নারায়ণগঞ্জ সিটির ভোট হবে। কেউ বিশৃঙ্খলা করলে দমন করা হবে। বহিরাগতদের প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। ১৮ বছরের উর্ধে কেউ বের হলে জাতীয় পরিচয়পত্র সঙ্গে নিয়ে বের হতে হবে।

আর সুষ্ঠু ভোট গ্রহণে নগরবাসীর সহযোগিতা চেয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার।

ভোটে জয়-পরাজয় নিয়ে কথা হয় কয়েকজন ব‍্যক্তির সঙ্গে। তারা সবাই ক্ষমতাসীন দলের একজন ব‍্যক্তির সমর্থন ও অভ‍্যন্তরীণ ভূমিকা নিয়ে কথা বলেছেন। এমনিই একজন লালমনিরহাটের বাসিন্দা সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার খানপুর এলাকার বাসিন্দা মাইদুল। ভাম‍্যমাণ এই ব‍্যক্তি ঝালমুড়ি ও ভাজা ছোলা বিক্রেতা। তিনি বলেন, নৌকার কথা বেশি শুনছি। ম‍্যাডাম ঘরে ঘরে গিয়ে মানুষের খবর নেন। রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করেছেন। তবে শামীম ওসমান একজন এমপি ও প্রভাবশালী। তার কথা শোনা যাচ্ছে- ভিতরে ভিতরে হাতির পক্ষে কাজ করছেন। এ কারণে স্বতন্ত্র প্রার্থী চাঙা। যদি সমর্থন ওই ব‍্যক্তির একই থাকে আইভি জিতলেও ভোটের ব‍্যবধান কমবে। রাজধানী রুপনগরের আবাসিক বাসিন্দা চাষাড়া এলাকার ব‍্যবসায়ী জসিম। তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জে দেড় লাখ ভাসমান ভোটার। এসব ভোটার অন‍্যদিকে ঝুঁকলে ভাইভির যেতা কঠিন হবে। স্থানীয় এমপির সঙ্গে নৌকা প্রার্থীর বিরোধ এবার প্রকাশ‍্যে। এটা কাজে প্রমাণিত হলে আইভি জিতলেও ব‍্যবধান হবে কম ভোটের।

এদিকে, শনিবার সকাল থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পুলিশ নিরাপত্তায় নির্বাচনী সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ের তথ‍্যমতে, নারায়ণগঞ্জ মর্গ্যান স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সিদ্ধিরগঞ্জ ও বন্দর এই তিন কেন্দ্র থেকে সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের সামগ্রী বিতরণ করা হয় । নির্বাচনে মোট ওয়ার্ড ২৭, কেন্দ্র ১৯২, বুথ ১৩৩৩, ভোটার ৫ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৭ ভোট। এবার পুরো সিটিতে ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট হচ্ছে। সূত্র: প্রতিদিনের সংবাদ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com