সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৩৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
কোটচাঁদপুর হাসপাতালের স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে প্রশ্ন ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতির চুয়াডাঙ্গায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাদকসেবীর কারাদন্ড ঠাকুরগাঁওয়ে বিয়ের দাবিতে চাচার বাড়িতে ভাতিজির অনশন ৪বোতল ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক চুয়াডাঙ্গা যুব মহিলা লীগের আয়োজনে স্থানীয় শহীদ দিবস পালিত চুয়াডাঙ্গা যুব মহিলা লীগের আয়োজনে স্থানীয় শহীদ দিবস পালিত ৩৫ বছরের শ্রেষ্ঠ মৎস্য হ্যাচারি ম্যানেজার আশরাফ-উল-ইসলাম দরিদ্র অসহায় রোগীদের বিনামূল্যে অপারেশন করানো হবে- জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন কোটচাঁদপুরে শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী পালন চুয়াডাঙ্গায় ভারতীয় বুপ্রেনরফাইন ইনজেকশনসহ আটক ১

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় দূর্ব‌ৃ‌ত্তের গুলিতে বিজিবির সোর্স নিহত।।

 

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুরে দূর্বৃ‌ত্তের গুলিতে হযরত আলী (৫৫) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার দিনগত রাত পৌনে ৩ টার সময় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের
জরুরি বিভাগে তার মৃত্যু হয়। রাত সাড়ে ১২ টার সময় নিজ ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় জানালা দিয়ে হযরত আলীকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে দূর্বৃত্তরা । গুলির শব্দে ঘুম ভাঙ্গে পরিবারের লোকজনের। তারা ছুটে গিয়ে হযরত আলীকে মাথায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। পরে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে পৌনে ৩ টার সময় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় পুলিশ
জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে থানা হেফাজতে নিয়েছে। নিহত হযরত আলী দামুড়হুদা উপজেলার পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের নাস্তিপুর গ্রামের মৃত
রহিছ উদ্দীনের ছেলে।নিহতের ছেলে তৌফিক হোসেন বলেন, তার পিতা হযরত আলী বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবির) সোর্স বা লাইনম্যান হিসেবে কাজ করতেন। তিনি একাধিক চোরাচালানের তথ্য বিজিবিকে দিয়েছেন। চোরাকারবারিরা তার পিতাকে হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছে বলে মনে করছেন ছেলে তৌফিক। তিনি আরও বলেন, অন্যান্য দিনের মত গতরাতেও আমরা
ঘুমিয়ে ছিলাম। রাত আনুমানিক সাড়ে ১২ টার সময় বিকট শব্দে আমার ঘুম ভেঙ্গে যায়। পরে পাশের কক্ষে আমার বাবার গোংরানির আওয়াজ শুনতে পেয়ে সেখানে গিয়ে দেখি বাবার মাথা থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছে। পরে বাবাকে দ্রুত উদ্ধার করে চাচাতো ভাইকে সাথে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিই। রাত পৌনে ৩ টার সময় চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাবার মৃত্যু হয়।এদিকে, হযরত আলী হত্যার ঘটনার সাথে সম্প্রতি দর্শনা বিজিবির হাতে দু’দফায় স্বর্ণের চালান আটকের ঘটনার যোগসূত্র থাকতে পারে বলে ধারণা করছেন স্থানীয় অনেকে। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সোহরাব হোসেন বলেন, রাত ১টা ২০ মিনিটের দিকে তাকে মূমুর্ষূ অবস্থায় নিয়ে আসা হয়। তার মাথায় গুলি
করা হয়েছে। রাত পৌনে ৩ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু তার হয়। দর্শনা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এএইচএম লুৎফুল কবীর বলেন, ঘুমন্ত অবস্থায় ঘরের জানালা দিয়ে হযরত আলীকে গুলি করে দূর্বৃ‌ত্তরা। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। তিনি বিজিবির সোর্স ছিলেন। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে থানা হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তবে তাকে এখনও পর্যন্ত আটক দেখানো হয়নি। ঘটনার নেপথ্য উম্মোচনে পুলিশ মাঠে নেমেছে বলেও জানান তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com