বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০২:১১ পূর্বাহ্ন

অনিয়ম-সহিংসতায় সারাদেশের চতুর্থ ধাপের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন

আমাদের চুয়াডাঙ্গা ডেস্ক:

প্রথম ৩ ধাপের মতোই চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম, সহিংসতা, মুখোমুখী সংঘর্ষ, গুলিবর্ষণ, ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের মধ্য দিয়ে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গার ৪ ইউপি, ঝিনাইদহের ১৫ ইউপিসহ দেশের ৮৩৮ ইউপিতে টানা ভোটগ্রহণ করে নির্বাচন কমিশন। এরমধ্যে ৩৮ ইউপিতে ভোটগ্রহণ করা হয় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলুকদিয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসলাম উদ্দিন বিশ্বাসের দুই কর্মীকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে নৌকা প্রতীকের আবুল কালাম আজাদের কর্মীদের বিরুদ্ধে।

ইউনিয়নের ঝোড়াঘাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। তাদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতরা হলেন- ইউনিয়নের জোড়াঘাটা গ্রামের হুচুকপাড়ার আব্দুস সাত্তারের দুই ছেলে রাজু আহমেদ ওরফে রাজিব (২৮) ও তারই ছোট ভাই রাসেল (২৩)।

দেশের বেশ ক’একটি জেলায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে ভোট বন্ধসহ প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের প্রত্যাহার করে নেয়ার মতো ঘটনাও ঘটেছে। এসময় এক প্রিসাইডিং কর্মকর্তার নির্দেশে গুলিতে একজন নিহত হন।
প্রিসাইডিং কর্মকর্তার নির্দেশে পুলিশের গুলিতে ঠাকুরগাঁওয়ে একজন নিহত হয়েছেন। জেলার সদর উপজেলার রাজাগাঁও ইউনিয়নের দক্ষিণ আসাননগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। তিনি বলেন, কেন্দ্র থেকে ব্যালট পেপারসহ নির্বাচনি সরঞ্জাম নিয়ে বের হওয়ার সময় পরাজিত মেম্বার প্রার্থীর লোকজন আক্রমণ করে। এক পর্যায়ে লাঠিচার্জ করা হয়। তারপরও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসায় প্রিসাইডিং কর্মকর্তার নির্দেশে গুলি করা হয়। এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত মরদেহ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানা যায়।

এদিকে, সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের ভুলুটিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট পেপারে সিল মেরে বাক্স ভর্তির অভিযোগে ভোট স্থগিত করা হয়েছে। এসময় কেন্দ্রের ভিতর ও বাইরে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। গতকাল রোববার বেলা ২ টার দিকে এঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চুয়াডাঙ্গা আদর্শ সরকারি মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ ও ভুলুটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার সাজ্জাদ হোসাইন।

তিনি বলেন, রোববার বেলা পৌনে ২ টার দিকে কিছু দুষ্কৃতিকারিরা ভুলুটিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের গোপন কক্ষে প্রবেশ করে জোরপূর্বক সিল মারে। তারা কোন প্রার্থীর কর্মী তা চিহ্নিত করা যায়নি। আইন শৃংখলনা পরিস্থিতির অবনতি হলে ভোট স্থগিত করা হয়।

এদিকে, অনিয়ম, জোরপূর্বক ব্যালট পেপারে সিল মারা, কর্মী ও এজেন্টের মারধরসহ নির্বাচনে সুষ্ঠ পরিবেশ না থাকায় ভোট বর্জন করেছেন চারজন চেয়ারম্যানপার্থী। তারা হলেন, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যানপ্রার্থী শাখাওয়াত হোসেন (আনারস), জুয়েল রানা (চশমা), নজরুল ইসলাম (মোটরসাইকেল) এবং আলুকদিয়া ইউনিয়নের ইসলাম উদ্দিন বিশ্বাস (আনারস)। বিভিন্ন অনিয়ম ও ভোট কারচুপির অভিযোগে নির্বাচন বর্জন করেছেন তারা।

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি জানিয়েছে, এবারের চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদের তিনটিটেই চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা জয় পেয়েছেন। এরমধ্যে কুতুবপুর ইউনিয়নের একটি ভোট কেন্দ্র স্থগিত করার কারণে এই ইউনিয়নের ফলাফল ঘোষণা করেনি রিটার্নিং কর্মকর্তা। তবে, ওই ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এগিয়ে রয়েছেন। গতকাল রোববার সকাল ৮ টা থেকে বেলা ৪ টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা রিটার্নিং কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার মোমিনপুর ইউনিয়নে আ.লীগ মনোনীত নৌকার প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন রতন ৫ হাজার ৭৪৩ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঘোড়া) গোলাম ফারুক জোয়ার্দ্দার পেয়েছেন ৪ হাজার ৭৮ ভোট। ইসলামী আন্দোদন বাংলাদেশ (হাতপাখা) একরামুল হক পেয়েছেন ৩৬৮ ভোট। এরমধ্যে মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা ১০ হাজার ১৮৯ ও বাতিলকৃত ভোটের সংখ্য ১৪৮।

পদ্মবিলা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ আলম ৪ হাজার ৫১৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী (আনারস) প্রতীকের সেলিম মল্লিক পেয়েছেন ৩ হাজার ৯২০ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঘোড়া) প্রতীকের আবু তাহের বিশ্বাস পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৫৭ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী (মোটরসাইকেল) প্রতীকের আতিয়ার রহমান পেয়েছেন ১ হাজার ৪৭ ভোট ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ (হাতপাখা) প্রতীকের ওমর ফারুক পেয়েছেন ৫৮৯ ভোট। এরমধ্যে মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা ১৩ হাজার ৮৩১ ও বাতিলকৃত ভোটের সংখ্য ৩৬।

আলুকদিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ ৮ হাজার ২১৩ ভোটে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোটরসাইকেল প্রতীকের (স্বতন্ত্র) প্রার্থী আক্তা উর রহমান মুকুল পেয়েছেন ৪ হাজার ৩০৯ ভোট। আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র পার্থী ইসলাম উদ্দিন বিশ্বাস পেয়েছেন ২ হাজার ৯৫৭ ভোট। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী আলিমুজ্জামান পেয়েছেন ২ হাজার ৬৫ ভোট। চশমা প্রতীকের স্বতন্ত্র পার্থী আব্দুল মজিদ পেয়েছেন ২১২ ভোট ও লাঙল প্রতীকের জাতীয় পার্টির জুলফিক্কার আলী (কলি) পেয়েছেন ৭১ ভোট। এরমধ্যে মোট বৈধ ভোটের সংখ্যা ১৭ হাজার ৮২৭ ও বাতিলকৃত ভোটের সংখ্য ৪০৭।

কুতুবপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলী আহম্মেদ হাসানুজ্জামান মানিক ১১ হাজার ৩৫৪ ভোটে এগিয়ে রয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী জুয়েল রানা পেয়েছেন ৩ হাজার ৯১৪ ভোট।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা কামরুল হাসান এবং সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বিকাশ কুমার সাহা রোববার রাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছে, ঝিনাইদহের ১৫টি ইউনিয়নে নৌকার বেশীর ভাগ প্রার্থীর পরাজয় ঘটেছে। বেসকারী ফলাফলে ১০টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও ৫টিতে নৌকার প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। নির্বাচনে সাধুহাটী ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান কাজী নাজির উদ্দীন, মধুহাটী ইউনিয়নে আলতাফ হোসেন, সাগান্না ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক (নৌকা), হলিধানী ইউনিয়নে এডভোকেট এনামুল হক নিলু, কুমড়াবাড়িয়া ইউনিয়নে সিরাজুল করিম, গান্না ইউনিয়নে আতিকুল হাসান মাসুম (নৌকা), মহারাজপুর ইউনিয়নে খুরশিদ আলম, পোড়াহাটী ইউনিয়নে শহিদুল ইসলাম হিরণ (নৌকা), হরিশংকরপুর ইউনিয়নে ফারুকুজ্জামান ফরিদ, পদ্মাকর ইউনিয়নে বিকাশ বিশ্বাস, দোগাছী ইউনিয়নে গোলাম কিবরিয়া কাজল, ফুরসন্দি ইউনিয়নে শিকদার শহিদুল ইসলাম(নৌকা), ঘোরশাল ইউনিয়নে পারভেজ মাসুদ লিল্টন (নৌকা), কালীচরণপুর ইউনিয়নে জাহাঙ্গীর হোসেন ও নলডাঙ্গা ইউনিয়নে সাইফুল আলম খান রিপন বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হন। নির্বাচনকে সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ করতে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ কঠোর অবস্থানে ছিল। ভোট কেন্দ্রে কোন রকম হঠকারীতা ও অনিয়ম রোধে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। গোয়েন্দা দিয়ে জরিপের মাধ্যমে ঝুকিপুর্ন কেন্দ্র চিহ্নিত করে সেখানে নেওয়া হয় বিশেষ ব্যবস্থা। ঝিনাইদহ জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাঃ আঃ ছালেক শুক্রবার বিকালে জানান, নির্বাচনে চেয়ারম্যানের ১৫টি পদে ৭২ জন, সাধারন সদস্যের ১৩৫ পদে ৪৯৫জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের ৪৫টি পদের বিপরীতে ১৪৮ জন প্রতিদ্বন্দিতা করেন। ১৫টি ইউনিয়নে মোট ভোটকেন্দ্র ছিল ১৪৮টি। স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলে মোট ৮১০টি ভোট কক্ষে ভোট গ্রহন করা হয়। ১৫টি ইউনিয়নে মোট ভোটার হচ্ছে দুই লাখ ৫৩ হাজার ৫০০। এর মেধ্য পুরুষ ভোটার এক লাখ সাতাশ হাজার ৬৮৮ ও মহিলা ভোটার এক লাখ পঁচিশ হাজার ৮১২ জন।

এদিকে, কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার ৫নং শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইভিএম মেশিনে ভোটগ্রহণে জটিলতার কারণে ভোট দিতে না পেরে ক’একশ ভোটার বাড়ীতে ফিরে গেছেন। ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণের সময়সীমা নির্ধারণ থাকলেও ভোট দিতে না পেরে ৬টা পর্যন্ত ২ শতাধিক নারী ভোটারকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

তবে, পাইকপাড়া মির্জাপুর কেন্দ্রে সকাল থেকেই নারীদের ইভিএমে ভোট দিতে গিয়ে ফিঙ্গার ম্যাচ না হওয়ার কারণে জটিলতা সৃষ্টি হয়। যে কারণে বেলা সাড়ে ৩টার দিকে জেলা প্রশাসক কুষ্টিয়া সাইদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া খায়রুল আলম, জেলা নির্বাচন অফিসার আনিসুর রহমান, খোকসা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন উপস্থিত হয়ে মেশিনটি দ্রুত সারানোর ব্যবস্থা করেন এবং পুনরায় ভোটগ্রহণ শুরু করার চেষ্টা করেন। এ সময় অনেক ভোটার ভোট দিতে না পেরে বাসায় চলে যান। কিন্তু সন্ধ্যা পর্যন্ত ২ শতাধিক নারী ভোট দিতে না পেরে দাঁড়িয়ে থাকেন ভোট কেন্দ্রে।

আমার সংবাদ পত্রিকার প্রাপ্ত তথ্য সূত্রে প্রকাশ:

নীলফামারীর সৈয়দপুরে ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছেন। জালভোটের গুজবে দুই মেম্বার প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। গতকাল দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ডাঙ্গাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন-মুসা মামুদের (তালা মার্কা)-এর কর্মী আল আমিন (২১), মুসা (১৯) ও লাবু (২৩) এবং আতিউলের (ফুটবল মার্কা) কর্মী জসিম (২৮), রশিদুল (১৮) ও কালা (২৩)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকেই শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। দুপুর ১টার দিকে মেম্বার প্রার্থী মুসা মামুদের একজন নারী এজেন্ট বুথ থেকে বের হয়ে চিৎকার করে বলেন, জালভোট দিতে এসে এক নারী ধরা পড়লেও প্রশাসন সহযোগিতা না করায় ওই মহিলা পালিয়ে গেছে।

এমন খবরে উপস্থিত কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তারা বুথে ঢোকার চেষ্টা করে। এতে প্রতিপক্ষ আতিউরের লোকজনও শোরগোল শুরু করলে উভয়ের মধ্যে বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। এ অবস্থায় পুলিশ ও আনসার সদস্যরা লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ফলে দু’পক্ষ দু’দিকে সরে যায়।

ফেনীর সোনাগাজীতে সাধারণ সদস্য প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। এছাড়া ভোটকেন্দ্রে অবৈধভাবে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগে ৬৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। নবাবপুর বিসি লাহা স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে জালভোট দেয়ার অভিযোগে দেলোয়ার হোসেন রনি নামে এক ছাত্রলীগ কর্মীকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দিয়েছেন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল হাসান।

বেলা ১১টার দিকে মতিগঞ্জ ইউনিয়নের স্বরাজপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মেম্বার প্রার্থী শাহ আলমের সমর্থকরা অপর মেম্বার প্রার্থী আজাদ হোসেন কিরণের তিন সমর্থক সুজন, রবিউল ও নাজিমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত করে। সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের চরখোয়াজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মেম্বার প্রার্থী আলাউদ্দিন এস্কান্দার ও হাফেজ কামালের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে সবুজ, নিলয়, নূর আলম, কবির আহাম্মদ ও ওমর ফারুক আহত হন।

ওমর ফারুক নামে এক যুবককে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। চরচান্দিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ চরচান্দিয়া হোসাইনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মেম্বার প্রার্থী ওমর ফারুক সজীবের সমর্থকদের সঙ্গে ও নুর ইসলাম লিটনের সমর্থকদের গোলাগুলিতে নারী-শিশুসহ কমপক্ষে ১২ জন গুলিবিদ্ধ হন।

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় দুটি ভোটকেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসারকে প্রত্যাহার করা হয়। উপজেলার গড্ডিমারী ইউনিয়নের মধ্য গড্ডিমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার আব্দুর রাজ্জাক ও একই ইউনিয়নের লুৎফর রহমান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের দেলওয়ার হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়।

জানা যায়, হাতীবান্ধায় ইউপি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলাকালে দুপুরে ওই দুই কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেন কিছু ভোটার। এজন্য চারজনকে আটক করা হয়। আটকদের মধ্যে তিনজন নৌকার কর্মী। খবর পেয়ে ওই ইউনিয়নের নির্বাচনি দায়িত্বে থাকা পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইফুর রহমান কেন্দ্র দুটি পরিদর্শন করে দায়িত্বে অবহেলার দায়ে ওই দুই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসারদের প্রত্যাহার করেন। তাৎক্ষণিকভাবে ওই দুই কেন্দ্রে রিজার্ভে থাকা দুজনকে নতুন প্রিসাইডিং অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়।

ফেনীর সোনাগাজীতে প্রশাসনের অভিযানে ৩০ বহিরাগতকে আটক করা হয়। তাদের একজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি জানান, তার বাড়ি ফুলগাজীর জিএম হাটে। ওই ইউপির চেয়ারম্যান জাকির হোসেন রতনের নির্দেশেই তিনি সোনাগাজীতে এসেছেন ভোট দিতে।

ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের সময় ঠাকুরগাঁওয়ে মেয়েসহ আটক করা হয় এক আওয়ামী লীগ নেতাকে। সদর উপজেলার ২নং আখানগর ইউনিয়নের ঝাড়গাঁও রহমানিয়া দাখিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এসময় পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে ১৫ রাউন্ড ফাঁকা বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

এতে হোসেন আলী (৩৫) নামে একজন আহত হন। আটক কাবুল (৪৫) স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে তার মেয়ে কামরুন নাহারকেও (২৫)। এসময় ওই কেন্দ্রে প্রায় আধঘণ্টা ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল। পরে বিজিবি, র‌্যাব ও প্রশাসন কেন্দ্রে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার পাটিতাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে আসেন জামেলা খাতুন ও জহুরা বেগম নামে দুই নারী। তারা নিকরাইল ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ভোটার। জামেলা খাতুন দোভায়া গ্রামের আব্দুর জলিল শেখের মেয়ে ও জহুরা বেগম একই গ্রামের সবুরের মেয়ে। তারা প্রায় চার ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে পৌনে ১টার দিকে বুথে ঢুকতে পারলেও ভোট দিতে পারেননি।

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার ফরিয়াদেরকুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়। মোরগ মার্কার মেম্বার প্রার্থী শহীদুল ইসলামের অনুসারীরা বল মার্কার জিয়াবুল হোসেনের অনুসারীদের ওপর হামলা চালায়। এসময় জিয়াবুল হোসেনের ভাই আখতার কামালকে বেধড়ক মারধর করা হয়।

ফরিয়াদেরকুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মুসলেম উদ্দিন বলেন, হঠাৎ করে কিছু উচ্ছৃঙ্খল ছেলে এসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। পরে অতিরিক্ত পুলিশের সহায়তায় আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। আপাতত ভোটগ্রহণ কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের জগন্নাথদিঘি ইউনিয়নের একটি ভোটকেন্দ্র থেকে সাংবাদিকদের বের হয়ে যেতে নির্দেশ দেন পুলিশের এক উপপরিদর্শক (এসআই)।

এক পর্যায়ে তিনি বলেন, কেন্দ্র না ছাড়লে সাংবাদিকদের আটক করা হবে। ভোটগ্রহণ চলাকালে জগন্নাথদিঘি ইউনিয়নের গাংরা আনেয়ারুল উলুম মাদ্রাসা কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ওই এসআইয়ের নাম চিরঞ্জীব বড়ুয়া। তিনি কুমিল্লা কোতোয়ালি থানায় কর্মরত বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রামে ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় পটিয়ায় দুই ইউনিয়নের তিনটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। জানা যায়, ছনহরা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের রমেশ ফনিন্দ্র স্মৃতি পাঠাগার ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ধাউরডেঙ্গা সারদাচরণ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র এবং জিরি ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাঁইদার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। এসব কেন্দ্রে পাঠানো ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়েছিল দুর্বৃত্তরা।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com