শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:১১ অপরাহ্ন

শিরোনাম
চুয়াডাঙ্গায় ভোক্তার অভিযানে দুই দোকান মালিককে জরিমানা, এক দোকান পাঁচ দিনের জন্য বন্ধ চুয়াডাঙ্গায় নিখোঁজের ১৫ দিন পর আখক্ষেত থেকে এক ব্যক্তির অর্ধ গলিত মরদেহ উদ্ধার চুয়াডাঙ্গায় ভারতীয় বুপ্রেনরফাইন ইনজেকশনসহ দুই মাদক কারবারি আটক মোটরসাইকেলে ঘুরতে বেরিয়ে গাছের সাথে ধাক্কায় দশম শ্রেণির ছাত্র নিহত, আরেক বন্ধু আহত সেনাবাহিনীর জন্য সর্বাধুনিক অস্ত্র কিনছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় আনসার ভিডিপির উপজেলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত চুয়াডাঙ্গায় পাওয়ারট্রলির সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল চালক নিহত, এক নারী আহত চুয়াডাঙ্গায় ভোক্তার অভিযানে দুটি প্রতিষ্ঠানের মালিককে জরিমানা

দুদকের মামলায় ১১ জনের কারাদণ্ড

জালিয়াতি করে এক কোটি ৪২ লাখ টাকা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে রমনা থানায় দুদকের করা মামলায় সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের আট কর্মকর্তাসহ মোট ১১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

রোববার বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক আল আসাদ মো. আরিফুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- ডিএন স্পোর্টস লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোতাহার উদ্দিন চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিকুর রহমান জন, পরিচালক ফাহিদা হক, সোনালী ব্যাংকের এজিএম সাইফুল হাসান, সোনালী ব্যাংকের জিএম মীর মহিদুর রহমান, এমডি ননী গোপাল নাথ, ডিজিএম শেখ আলতাফ হোসেন, ডিজিএম মোহাম্মদ শফিজ উদ্দিন আহমেদ, এজিএম কামরুল হোসেন খান, ডিএমডি মোহাম্মদ মাইনুল হক, সিইও হুমায়ুন কবির।

রায়ে পৃথক দুই ধারায় আসামি মোতাহার, শফিকুর ও ফাহিদাকে মোট ৮ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। তবে উভয়সাজা একসঙ্গে চলবে বিধায় তাদের পাঁচ বছরের সাজা ভোগ করতে হবে। এছাড়া অপর আট আসামিকে তিন বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

২০১১ সালের ১৫ এপ্রিল থেকে ২০১২ সালের ২৭ মে’র মধ্যে সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের হোটেল শেরাটন শাখা থেকে ডিএন স্পোর্টস লিমিটেডের নামে প্রিশিপমেন্ট ক্রেডিট (পিএসসি) বাবদ ১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা তুলে আত্মসাৎ করা হয়। এ অভিযোগে দুদকের সহকারী পরিচালক সেলিনা আক্তার মনি ২০১৩ সালের ১ জানুয়ারি ১৬ জনকে আসামি করে রমনা থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে ১১ জনকে অভিযুক্ত করে ২০১৪ সালের ২২ মে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. নাজমুচ্ছায়াদাত। তদন্তে আসামিদের বিরুদ্ধে ১ কোটি ৪২ লাখ ৯৪ হাজার ৭৪ টাকা আত্মসাতের তথ্য উঠে আসে। ২০১৫ সালের ৪ নভেম্বর ১১ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। মামলাটির বিচার চলাকালে আদালত ৬১ সাক্ষীর মধ্যে ৪৪ জনের সাক্ষ্য নেন। সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

Please Share This Post in Your Social Media

১৫

© All rights reserved © 2020 dailyamaderchuadanga.com