বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০১:৪৫ পূর্বাহ্ন

৫৬ টাকায় চাকরি পেলেন ৩০ তরুণ-তরুণী

মাত্র ৫৬ টাকার ব্যাংক ড্রাফটে নোয়াখালী জেলা প্রশাসনে চাকরি পেলেন ৩০ তরুণ-তরুণী। বিনা টাকায় চাকরি পেয়ে তারা আবেগ-আপ্লুত হয়ে পড়েন। ঘুষ ছাড়া চাকরি দিয়ে ধারণা পাল্টে দিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান।

সোমবার (২৯ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় জেলা প্রশাসকের কক্ষে ৩০ তরুণ-তরুণীর হাতে ফুল ও নিয়োগপত্র তুলে দেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান।

জেলা প্রশাক জানান, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের আওতায় ৩০টি চতুর্থ শ্রেণির শূন্য পদে নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৬৫০০ জন আবেদনকারী। এরমধ্যে অফিস সহায়ক ৫ জন, নিরাপত্তা প্রহরী ১০ জন, মালি ২ জন, পরিচ্ছন্নতা কর্মী ৯ জন, বেয়ারার ৩ জন ও সহকারী বাবুর্চি পদে ১ জন রয়েছেন।

অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ প্রাপ্ত সুমাইয়া আক্তার বলেন, সদর উপজেলার লক্ষ্মীনারায়পুর গ্রামে আমার বাড়ি। মাত্র ৫৬ টাকা খরচে চাকরি পাবো স্বপ্নেও ভাবি নাই। যেহেতু ঘুষ ছাড়া চাকরি পেয়েছি তাই আজীবন মানুষকে সেবা দিবো ইনশাআল্লাহ।

সহকারি বাবুর্চি পদে নিয়োগ প্রাপ্ত আবদুর রহিম বলেন, শুনেছি সরকারি চাকরি মানে ঘুষের ছড়াছড়ি। কিন্তু এই পদে চাকরির জন্য কাউকে একটাও ঘুষ দেওয়া লাগেনি।

অফিস সহায়ক পদে নিয়োগপ্রাপ্ত শারীরিক প্রতিবন্ধী আশরাফুল করিম বলেন, শারীরিক সীমাবদ্ধতা থাকায় অনেক জায়গায় লাঞ্চিত হয়েছি। আমাদের সামর্থ্য নেই টাকা পয়সা দিয়ে চাকরি নেওয়ার। মাত্র ৩ দিন আগে পরীক্ষা নিয়ে এত দ্রুত সময়ের মধ্যে সরকারি চাকরি পাবো তা স্বপ্নেও ভাবি নাই। জেলা প্রশাসক স্যারের কাছে আজীবন কৃতজ্ঞ থাকবো।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, ৩০ পদের জন্য সাড়ে ছয় হাজার আবেদন জমা পড়েছে। আমরা ২৬ নভেম্বর লিখিত পরীক্ষা, ২৭ নভেম্বর মৌখিক পরীক্ষা এবং আজ ২৯ নভেম্বর নিয়োগপত্র তুলে দিলাম। যোগ্যতা ও দক্ষতার বিচারে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, যেহেতু তারা বিনা টাকায় নিয়োগ পেয়েছে তারা যেনো বিনা টাকায় মানুষের সেবা করে।

মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান আরও বলেন, যারা আজকে নিয়োগ পেয়েছেন তাদের দেশের জন্য অনেক কিছু করার আছে। নিষ্ঠার সাথে নিজের উপর অর্পিত দায়িত্বটুকু পালন করলে দেশ দূর্নীতি মুক্ত হবে। আশা করি সকলে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে সরকারি দায়িত্ব পালন করবেন।

সভায় উপস্থিত নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বখতিয়ার শিকদার বলেন, আগামী ফেব্রুয়ারীতে আমার সাংবাদিকতার ৫০বছর পুর্ণ হবে গত ৫০ বছরে সরকারি নিয়োগের এমন সততা আর দেখিনি।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইসরাত সাদমীনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তারিকুল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. রবিউল হাসান, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আবু ইউসুফ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. নাজিমুল হায়দার, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফারহানা জাহান উপমাসহ জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com