বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
চুয়াডাঙ্গায় ভারতীয় বুপ্রেনরফাইন ইনজেকশনসহ দুই মাদক কারবারি আটক মোটরসাইকেলে ঘুরতে বেরিয়ে গাছের সাথে ধাক্কায় দশম শ্রেণির ছাত্র নিহত, আরেক বন্ধু আহত সেনাবাহিনীর জন্য সর্বাধুনিক অস্ত্র কিনছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় আনসার ভিডিপির উপজেলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত চুয়াডাঙ্গায় পাওয়ারট্রলির সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল চালক নিহত, এক নারী আহত চুয়াডাঙ্গায় ভোক্তার অভিযানে দুটি প্রতিষ্ঠানের মালিককে জরিমানা চুয়াডাঙ্গায় গাঁজা গাছসহ হাতিকাটার মুছাহক মন্ডল আটক গাংনীতে মুদিব্যবসায়ীর আত্মহত্যা ব্র্যাকের আয়োজনে নাগরীক সংগঠনের প্রতিনিধিদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে কর্মশালা

খুলনা দাকোপে শ্রান্তি ভাতা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ”

খুলনা ব্যুরো প্রধান
দাকোপ উপজেলার স্বনামধন্য চালনা নকুল চন্দ্র ব্লু বার্ড সঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও উপজেলা সহকারী শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক পল্লব বিশ্বাস উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জনাব অহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে শ্রান্তি ভাতা প্রদানে অনিয়মের অভিযোগ প্রকাশ করলে বিভিন্ন অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিক্ষা কর্মকর্তার দেওয়া বক্তব্যকে কুরুচিপূর্ণ বলে মন্তব্য করেন শিক্ষক পল্লব বিশ্বাস। উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দির্ঘদিন সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন। পল্লব বিশ্বাস ২০০৩ সালের ৬ ই সেপ্টেম্বর জেলা আওয়ামী লীগ চত্বরে বোমার আঘাতে আহত হন।

মুক্তিযোদ্ধার সন্তান শিক্ষক পল্লব বিশ্বাস বলেন প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালের মার্চে দাকোপ উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন অহিদুল ইসলাম। যোগদানের পর থেকেই তাঁর বিরুদ্ধে নানা ধরনের অনিয়মের অভিযোগ ওঠে। প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরির মেয়াদ তিন বছর হলে সাধারণত বিনোদন ভাতা ও ছুটি প্রাপ্ত হন।

এ ক্ষেত্রে ২০১৯ সালে ৭৫ জন শিক্ষককে বিনোদন ভাতা দেন ওই শিক্ষা কর্মকর্তা। তাঁদের মধ্যে অনেকেরই চাকরির বয়স তিন বছর পূর্ণ ছিল না। শুধু তা-ই নয়, আগের ছুটির তারিখ গোপন রেখে অনেককে একাধিকবার বিনোদন ভাতা দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে একই সময়ে জাতীয় করা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের মধ্যে ১০ জনকে অনৈতিকভাবে বেতন-ভাতা বাড়িয়ে দিয়েছেন।

এ ছাড়া উপজেলার ১১৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিম্নমানের ডিজিটাল হাজিরা মেশিন কেনা, নিজ অফিসকে হোমিওপ্যাথি চেম্বার হিসেব ব্যবহার, বয়স্ক শিক্ষকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।চাকরির বয়স চার থেকে পাঁচ বছর পার করছেন—এমন কয়েকজন শিক্ষক জানান, বিনোদন ছুটির ক্ষেত্রে আর্থিক সুবিধা দিতে হয় শিক্ষা কর্মকর্তাকে। শুধু তা-ই নয়, সর্ভিস বুক জমা ও গ্রহণকালেও অফিসে টাকা দিতে হয়। চাকরির ভয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলতে বলতে পারছেন না তাঁরা। তাঁদের আরো অভিযোগ, ২০২০ সালের ১৫ মার্চ পটুয়াখালীতে সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে বদলি হলেও সেখানে যোগ দেননি তিনি।

দাকোপ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অহিদুলইসলামের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সঠিক নয়।

 

স্বপন কুমার রায়/এ.এইচ

Please Share This Post in Your Social Media

১২

© All rights reserved © 2020 dailyamaderchuadanga.com