শুক্রবার, ৩০ Jul ২০২১, ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
খাদ্যশস্য মজুদের রেকর্ড গড়তে যাচ্ছে সরকার চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে করোনা পরীক্ষায় অতিরিক্ত টাকা আদায় বন্ধ আ’লীগের পদ হারানো ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক, বিভিন্ন অবৈধ সরঞ্জাম উদ্ধার চুয়াডাঙ্গায় জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা মেহেরপুরের ২ গ্রামে হুট করেই মৃত্যুর হিড়িক, ১ মাসে প্রাণ গেল ৪৪ জনের মাদ্রাসার কমিটি নিয়ে দ্বন্দের জেরে আত্রাইয়ে প্রতিপক্ষের হামালায় মা-ছেলেসহ আহত ৩ আত্রাইয়ে সাপের কামড়ে যুবকের মৃত্যু আত্রাইয়ে লকডাউনে মুরগী খামারীরা চরম লোকসানে শিকার নেক সন্তানের জন্য নিঃসন্তান দম্পতি যে দোয়া পড়বেন যে তিন কাজের জন্য বান্দার জাহান্নাম অবধারিত

ঈদের পর ১৪ দিনের সবচেয়ে কঠোরতম লকডাউন, বন্ধ থাকবে শিল্প কারখানা -প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ

কোরবানী ঈদকে ঘিরে আমাদের বিশাল অর্থনীতি রয়েছে। অনেকে গরু প্রতিপালন করেছে। সবকিছু বিবেচনা করে চলাফেরার ওপর বিধিনিষেধ শিথিল করতে হয়েছে। তবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। ঈদের পর আগামী ২৩ জুলাই (শুক্রবার) থেকে ৫ আগষ্ট (বৃহস্পতিবার) পর্যন্ত ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন দেয়া হবে ও লকডাউনের সময় সরকারী, বেসরকারী অফিসসহ গার্মেন্ট ও শিল্প কারখানা বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন আরও বলেন, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়া কৃষিভিত্তিক অর্থনৈতিক এলাকা। এ অঞ্চলটা এতদিন অবহেলিত ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ এলাকাসহ প্রত্যেকটা অঞ্চলকে গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল হিসেবে গড়ে তুলছে। মুজিবনগর, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহ রাস্তাটি খুবই সুন্দর করা হয়েছে। আগামীতে আঞ্চলিক যোগাযোগের জন্য মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া ও ঝিনাইদহের মাঝামাঝি জায়গায় অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দর করা হবে। বিজিবি সদস্যরা নিজেদের সক্ষমতা দিয়ে দেশের সীমান্তের অতন্ত্র প্রহরী হিসেবে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এ বাহিনীকে আরও আধুনিকভাবে গড়ে তুলতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। চুয়াডাঙ্গা বিজিবিতে পূর্ণাঙ্গা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। মেহেরপুরেও বিজিবি ব্যাটালিয়ন সংযুক্ত করে ব্যাটালিয়ন সদর দফতর স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ আরও বলেন, কঠোর স্বাস্থ্যবিধি না মেনে কোনো উপায় নেই। সরকার অনেক খরচ করছে। ওই টাকা দিয়ে দেশের রাস্তাঘাট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন করা সম্ভব হতো। তা খরচ করতে হচ্ছে করোনা নিয়ন্ত্রণে। কিন্তু মাস্ক না পরলে সব বিফলে যাবে। সকলকে মাস্ক পরতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে।

শনিবার বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-৬ এর ৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

চুয়াডাঙ্গা জেলায় অবস্থিত বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর ঐতিহ্যবাহী চুয়াডাঙ্গা ব্যাটালিয়ন (৬ বিজিবি) এর প্যারেড গ্রাউন্ডে শনিবার সকাল ১০টার সময় নবীন সৈনিকদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে রিজিয়ন কমান্ডার, রিজিয়ন সদর দপ্তর, যশোরসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ প্যারেড গ্রাউন্ডে উপস্থিত হলে চুয়াডাঙ্গা ব্যাটালিয়ন (৬ বিজিবি) এর অধিনায়ক পরিচালক মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান, পিএসসি তাদেরকে অভ্যর্থনা জানান। এর পর সকাল সাড়ে ১০ টার সময় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীকে সশস্ত্র সালাম প্রদানের মধ্য দিয়ে নবীন সৈনিকদের শপথ গ্রহণ ও প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়।

কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দার, বিজিবির যশোর রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মশিউর রহমান, ৬ বিজিবির পরিচালক লে. কর্নেল মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান পিএসসি, জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার, পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক মুনছুর আলম খান, মেহেরপুর পুলিশ সুপার রাফিউল আলম, বিজিবির ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা, জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজের প্যারেড কমান্ডার হিসেবে মনোজ্ঞ এ প্যারেড পরিচালনা ক

রেন ৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের অফিসার ইনচার্জ মেজর নিস্তার আহমেদ এবং প্যারেড এ্যাডজুটেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সহকারী পরিচালক শেখ মোহাম্মদ ইমরান আলী।
৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের ২৭৮ সৈনিক চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি কার্যালয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। ছয় মাস প্রশিক্ষণ শেষে সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে বিজিবিতে নতুন যুক্ত জওয়ানরা প্রধান অতিথি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ফরহাদ হোসেনকে কুচাকাওয়াজের মাধ্যমে সালাম প্রদর্শন করেন। পরে তাদের শপথ বাক্য পাঠ করানো হয়। এর আগে ৩ জন সৈনিকের হাতে মন্ত্রী পুরস্কার তুলে দেন।

চুয়াডাঙ্গা ব্যাটালিয়ন ৬ বিজিবি’র অধিনায়ক পরিচালক পিএসসি মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান সাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের মৌলিক প্রশিক্ষণ গত ৩১ জানুয়ারী ২০২১ তারিখে শুরু হয়। চুয়াডাঙ্গা ব্যাটালিয়নে (৬ বিজিবি) প্রশিক্ষণ নেয়া মোট ২৭৮ জন রিক্রুট প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে। চুয়াডাঙ্গা ব্যাটালিয়ন ছাড়াও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর অন্যান্য আরও ০৮টি প্রশিক্ষণ ভেন্যুতে ৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের নবীন সৈনিকদের মৌলিক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। দীর্ঘ ২৪ সপ্তাহের অত্যন্ত কঠোর ও কষ্টসাধ্য এ প্রশিক্ষণ সফলভাবে শেষ করে শনিবার আনুষ্ঠানিক শপথ গ্রহণ ও সমাপনী কুচকাওয়াজের মাধ্যমে তাদের সৈনিক জীবনের শুভ সূচনা হলো।

৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ শেষে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী নবীন সৈনিকদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন উপদেশ ও দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন। বক্তবের শুরুতে তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। একইসাথে তিনি মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী বিজিবি’র ৮১৭ জন অকুতোভয় বীর বিশেষ করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ এর শহীদ বীরশ্রেষ্ঠ ল্যান্স নায়েক মুন্সী আব্দুর রউফ, শহীদ বীরশ্রেষ্ঠ ল্যান্স নায়েক নুর মোহাম্মদ শেখ এবং মুক্তিযুদ্ধে অনন্য অবদানের জন্য এ বাহিনীর ০৮ জন বীরউত্তম, ৩২ জন বীরবিক্রম এবং ৭৭ জন বীরপ্রতীক খেতাবে ভূষিত বীরদেরও শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, জাতির পিতার হাতে গড়া এই বাহিনী আজ একটি সুসংগঠিত, চৌকস, সুশৃঙ্খল ও পেশাদার দেশপ্রেমিক বাহিনীতে পরিণত হয়েছে। বিজিবি ‘সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরী’ হিসেবে দেশের ৪,৪২৭ কি:মি: দীর্ঘ সীমান্ত সুরক্ষা, সীমান্ত ভূমি ও সম্পদের নিরাপত্তা বিধান, সীমান্তে চোরাচালান, নারী ও শিশু পাচার রোধসহ যেকোন ধরণের সীমান্ত অপরাধ দমন সর্বোপরি দেশের সার্বভৌমত্ব ও অখন্ডতা রক্ষার মহান দায়িত্ব অত্যন্ত দৃঢ়তা ও সফলতার সাথে পালন করে আসছে।

এছাড়াও দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা রক্ষায় অসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা প্রদানসহ যেকোন দুর্যোগ মোকাবিলার ক্ষেত্রেও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিশ্বস্ততা ও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে সেবা ও কর্তব্য পরায়ণতার মাধ্যমে সমগ্র জাতির শ্রদ্ধা, ভালোবাসা ও আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।মাননীয় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ১৯৭৪ সালের ০৫ ডিসেম্বর তৎকালীন বিডিআর-এর ৩য় ব্যাচের সমাপনী কুচকাওয়াজে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের চোরাচালান বিরোধী ও প্রেষণামূলক মূল্যবান বক্তব্যের কথা স্মরণ করে চোরাচালান রোধে নবীন সৈনিকদেরকে পেশাগত দক্ষতা অর্জনসহ ব্যক্তিগতভাবে সুদৃঢ়, সুশৃঙ্খল, নির্লোভ ও নির্ভীক সর্বোপরি উন্নত চরিত্রের অধিকারী হওয়ার উপদেশ দেন। তিনি বিজিবি’র নবীন সৈনিকদের প্রদর্শিত কুচকাওয়াজের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন এবং নবীন সৈনিকদের নতুন জীবনে পদার্পনের শুভলগ্নে তাদের স্বাগত জানান। একইসাথে নবীন সৈনিকদের দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের নিদর্শন তুলে ধরার জন্য যশোর রিজিয়ন কমান্ডার, চুয়াডাঙ্গা ব্যাটালিয়ন (৬ বিজিবি) এর অধিনায়ক এবং সংশ্লিষ্ট সকল প্রশিক্ষক ও কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান।

বিজিবি’র সার্বিক উন্নয়নে বর্তমান সরকারের বাস্তবায়িত বিভিন্ন কর্মকান্ডের কথা উল্লেখ করে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিজিবিকে একটি অত্যাধুনিক ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন সীমান্তরক্ষী বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বিজিবি’র সাংগঠনিক কাঠামোতে ব্যাপক পরিবর্তন এনে বিজিবিকে একটি ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে উন্নীত করা হয়েছে। ‘স্মার্ট বর্ডার ম্যানেজমেন্ট’ এর অংশ হিসেবে সীমান্তে নতুন বিওপি, বিএসপি নির্মাণসহ অত্যাধুনিক সার্ভেইলেন্স ইকুইপমেন্ট স্থাপন, এটিভি ও অত্যাধুনিক এপিসি, রায়ট কন্ট্রোল ভেহিক্যাল, ভেহিক্যাল স্ক্যানার ও দ্রুতগামী জলযান সংযোজন করা হয়েছে। এছাড়াও অতি সম্প্রতি এই বাহিনীতে অত্যাধুনিক এন্টি ট্যাংক গাইডেড উইপন সংযোজন করা হয়েছে।

মাননীয় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বিজিবি’র প্রশিক্ষণ কর্মকান্ডের কলেবর বৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনায় রেখে বর্ডার গার্ড ট্রেনিং সেন্টার এন্ড কলেজ, বায়তুল ইজ্জত, সাতকানিয়ার পাশাপাশি চুয়াডাঙ্গা জেলায় বিজিবি’র প্রশিক্ষণের জন্য আরও একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করার পরিকল্পনা বর্তমান সরকারের রয়েছে। যেখানে বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্স স্থাপনসহ আধুনিক প্রশিক্ষণ সুবিধা বিদ্যমান থাকবে। সেখানে দেশ ও বিদেশ থেকে অনেক প্রশিক্ষণার্থী প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য এখানে আগমন করবেন, যা চুয়াডাঙ্গা তথা বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাজধানীর ঐতিহ্যকে আরও বিকশিত করবে বলে তিনি বিশ্বাস করেন।

এছাড়াও মেহেরপুর জেলায়, মেহেরপুর ব্যাটালিয়ন নামে আরও একটি বিজিবি ব্যাটালিয়ন স্থাপনের কাজ চলমান রয়েছে যা আধুনিক বর্ডার ও সীমান্তের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নিঃসন্দেহে বিশেষ অবদান রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, এমপি প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান শেষে ৯৬তম রিক্রুট ব্যাচের সেরা চৌকস রিক্রুট হিসেবে ১ম স্থান অধিকারী বক্ষ নম্বর ১০০৭ রিক্রুট (জিডি) ইমন হোসেন এবং অন্যান্য বিষয়ে সেরা সৈনিকদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন। পরিশেষে বিজিবির সুসজ্জিত নবীন সৈনিকদের চৌকস দল কর্তৃক মাননীয় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীকে আবারও সশস্ত্র সালাম প্রদানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT