সোমবার, ২১ Jun ২০২১, ১২:১৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
এবার ‘বাড়ীর কাজে’ শিক্ষার্থী মূল্যায়ন, বাতিল হচ্ছে পিইসি পরীক্ষা: বাতিল হতে পারে ইইসি, জেএসসি ও জেডিসিও ‘অন্যের চাকরির উৎস হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে’ ভূমিধস বিজয়ে ইরানের ১৩তম প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রায়িসি ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ’ হত্যা করে ৯৯৯ নম্বরে ফোন, ‘বাবা, মা, বোনকে খুন করেছি, আইস্যা নিয়া যান’ চুয়াডাঙ্গায় করোনায় আক্রান্ত আরও ৩ জনের মৃত্যু: নতুন সংক্রমণ ৬৮ চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকা ও আলুকদিয়া ইউনিয়ন লকডাউন ঘোষণা অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রমকালে বাংলাদেশী ২৫ নাগরিক আটক সলঙ্গায় ২০০ মিটার নতুন পাকা রাস্তা পেয়ে আনন্দিত এলাকাবাসী নবীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মুকুলের পরিবারের আর্ত্মনাদ

নবীগঞ্জে নারীকে উদ্ধার ও নির্যাতনের চিত্র তুলার সময় সাংবাদিকের মোবাইল চিনিয়ে নেয় গ্রামের ত্রাস ময়না

সিলেট ব্যুরো চীফঃ

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলাধীন ১১ নং গজনাই পুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড কায়স্থ গ্রামে পাঁচ দিন যাবৎ জিবা নামের এক নারী কে নির্যাতন করা হলে, নারীর বোন ন্যাশনাল এনভায়রনমেন্ট এন্ড হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের সভাপতি সাংবাদিক ফরজুন আক্তার মনি কে গত ৩০ মে রবিবার কান্নাকাটি করে ফোনে জানালে, তিনি তাত্ক্ষণিক অবস্থায় ঘটনা স্থলে পৌঁছান।

জিবা বেগমের করুন অবস্থা দেখে তিনি চিকিৎসার জন্য কায়স্থ গ্রাম বাজার রিকশা স্ট্যান্ডে পৌঁছানোর সাথে সাথে কায়স্থ গ্রামের ত্রাস ময়না মিয়ার নেতৃত্বে তিন নারী কে নির্যাতনসহ সাংবাদিকের মোবাইল চিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, কয়েক বছর আগে মৌলভীবাজার সদর থানার জিবা বেগমের বিয়ে হয় কায়স্থ গ্রামের মৃত দরবেশ মিয়ার ছেলের রুহেল মিয়ার সাথে। বিয়ের কিছু দিন পর টাকার জন্য গর্ভ অবস্থায় নির্যাতন করলে জিবা তার বাপের বাড়ি বাচ্চা প্রসবসহ দীর্ঘ দিন থাকেন।

গত রমজান মাসে রুহেল মিয়ার পরিবার বিভিন্ন কৌশলে মুরুব্বির মাধ্যমে জিবাকে আবার নিয়ে আসেন। গত ৫/৬ দিন আগে আবার বিদেশে যাওয়ার টাকা দেওয়ার জন্য নির্যাতন শুরু করেন।নির্যাতনের এক পর্যায় জিবাকে মৌখিকভাবে তালাক প্রদান করেন রুহেল মিয়া। তালাকের পরও ঘরবন্দী করে পরিবারের সবাই মারপিট করলে জিবা আত্মরক্ষার জন্য কৌশলে গত ৩০ মে রবিবার বেলা ১২ টায় স্বপ্না বেগমের ঘরে আসেন। স্বপ্না বেগমের ঘরে এসেও রক্ষা পান নি।

স্বপ্না বেগমসহ আক্রমণের চেষ্টা চালানোর ঘটনা ঘটলে ন্যাশনাল এনভায়রনমেন্ট এন্ড হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের হবিগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক ফরজুন আক্তার মনিকে কান্নাকাটি করে ফোন করলে, তিনি তাত্ক্ষণিক অবস্থায় ঘটনা স্থলে পৌঁছান। মহিলার করুন অবস্থা দেখে ওই দিনই বেলা অনুমান ৫টার দিকে নদী পার করে কায়স্থ গ্রাম বাজারের রিকশা স্ট্যান্ডে পৌঁছানো মাত্রই জিবা ও স্বপ্না বেগমের উপর কায়স্থ গ্রামের ত্রাস মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে ময়না মিয়া প্রায় ২০ জন লোক নিয়ে নির্যাতন ও শ্লীলতাহানি শুরু করেন। দৃশ্যটি সাংবাদিক মনি তথ্য সংগ্রহ করার মোবাইলে ধারণ করার সময় সাংবাদিকের উপর হামলা করে মোবাইল ফোন চিনিয়ে নেয় ময়না মিয়া।

ঘটনাটি নবীগঞ্জ থানার ওসি ডালিম আহমেদ জানতে পেরে তাত্ক্ষণিক অবস্থায় গোপলা বাজার ফাঁড়ির এস আই হান্নান মিয়াকে ঘটনা স্থলে পাঠিয়ে নির্যাতিত দুজন মহিলাসহ সাংবাদিকের তথ্যের মোবাইল ফোন উদ্ধার করেন। আহত তিন নারী নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেন।৩১ মে সোমবার বেলা ১ টার দিকে সাংবাদিক মনি’র উদ্ধার কৃত মোবাইল ফোন তার হাতে তুলে দেন গোপলা বাজার পুলিশ ফাঁড়ির এস আই হান্নান মিয়া।

 

ফরজুন আক্তার মনি/এ.এইচ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT