শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ০৭:২০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
ঝড়-বৃষ্টিতে ম্লান হতে পারে ঈদ আনন্দ ঈদ উদযাপন যেন সংক্রমণ বাড়ার উপলক্ষ না হয়: প্রধানমন্ত্রী মেহেরপুরের গাংনীতে মাংসের দােকান উচ্ছেদ করলেন মেয়র আহম্মেদ আলী ফিলিস্তিনিদের উপর হামলার প্রতিবাদে ঝিনাইদহে মানববন্ধন গাংনীতে দােকানদারের হামলায় বাবা-মেয়ে আহত ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে বজ্রপাতে গৃহবধু শেফালীর মৃত্যু কুষ্টিয়া মিরপুর থানা পরিদর্শন করলেন পুলিশ সুপার খাইরুল আলম মুজিবনগরে সিডিপি‘র স্পান্সার শিশুদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী উপহার প্রদান গাংনীতে খাদ্য অনপোযুগী পঁচা চাল নিয়ে চালবাজি, মােটরশ্রমিকদের তােপের মুখে চাল বিতরণ বন্ধ চুয়াডাঙ্গায় ২১ বীর মুক্তিযোদ্ধা পুলিশ পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী প্রদান

গাংনী হাসপাতালে প্রভাব খাঁটানো হিসাব রক্ষক সেই লিটন বদলী: জনমনে স্বস্তি

বিশেষ প্রতিনিধি, মেহেরপুর:

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা (হাসপাতাল) স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান সহকারী (কাম) হিসাব রক্ষক আসাদুল ইসলাম ওরফে লিটনকে বদলীর আদেশ দেয়া হয়েছে। গত মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদফতর তাকে একই পদে মাগুরা জেলার মহাম্মদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বদলীর আদেশ দেয়। দীর্ঘদিন ধরে গাংনী হাসপাতালে কর্তব্যরত থাকাকালীন নানান প্রভাব খাঁটিয়ে আসছিলেন। তার প্রভাবে সাংবাদিকসহ হাসপাতালে আসা জনসাধারণ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন। আলোচিত লিটনের বদলীর খবরে স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ সংশি¬ষ্ঠদের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ। তার এ বদলীতে হাসপাতালের ষ্টাফদের মধ্যে আনন্দ চলছে।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা: শেখ মোহাম্মদ হাসান ইমাম স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়েছে, প্রশাসনিক কারণে তাকে বদলী করা হয়েছে। আদেশ জারীর তিন কর্মদিবসের মধ্যে তাকে ছাড়পত্র গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় চার কর্মদিবস হতে সরাসরি অব্যহতি পেয়েছেন বলে গণ্য হবে।
সরকারী এ আদেশ প্রতপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সূত্র।
গাংনী হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, আসাদুল ইসলাম লিটন কর্মজীবনে দীর্ঘ সময় ধরে নিজের এলাকা অর্থাৎ গাংনী হাসপাতালে চাকুরী করে আসছেন। স্থানীয় ও রাজনৈতিক শক্তি ব্যবহার করে তিনি হাসপাতালের নানা অনিয়ম করলেও পার পেয়ে গেছেন বার বার। কয়েক বছর আগে তার বদলী হলেও আবারো নানা তদবীরে গাংনীতে ফিরে আসেন। শুরু করেন আগের মতোই প্রভাব বিস্তর। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতেও ভয় পেয়েছেন কর্তৃপক্ষ। ব্যবস্থা নিতে গেলেই দায়িত্বশীল কর্মকর্তাকে নানাভাবে হেনস্থ হতে হয়েছে বলে নজির রয়েছে।

 

কামাল হোসেন খাঁন/এ.এইচ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT