মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৮:২০ অপরাহ্ন

শিরোনাম
চুয়াডাঙ্গায় ২১ বীর মুক্তিযোদ্ধা পুলিশ পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী প্রদান ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্তে অবৈধভাবে প্রবেশের দায়ে দালালসহ আটক-২৮ ঝিনাইদহের মহেশপুরে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন এমপি চঞ্চল কালীগঞ্জে মসজিদের ইমামদের আর্থিক অনুদান প্রদান ডিজিটাল বাংলাদেশের নাগরিক সেবায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি চুয়াডাঙ্গায় আলমসাধুর ধাক্কায় ৪ বছরের শিশুর মৃত্যু লক্ষ্যকোটি মানুষের ভালোবাসার মাঝে, সর্বোচ্চ মা’য়ের ভালোবাসা- আলী মুনছুর বাবু চুয়াডাঙ্গায় মুড়ি প্রস্ততকারী মেসার্স ইনসাফ ট্রেডার্সকে জরিমানা চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় বোরো ধান চাল সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধন পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন  শেখ নজরুল ইসলাম

দামুড়হুদা উপজেলায় রাতের আঁধারে লুট হচ্ছে ফসলী জমির মাটি

দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি:

অবৈধ উপায়ে দামুড়হুদা উপজেলা সদরের পাটাচোরা রোডের কাঁঠাল তলা মাঠের খালে রাতে চলছে আলী হোসেন সিন্ডিকেটের মাটি কাটার উৎসব। আলী হোসেন সহ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অবৈধভাবে বালু ও মাটি উত্তলোনের জন্য শব্দ ও বায়ু দূষণে জনজীবন হচ্ছে বিপর্যস্ত।
আলী হোসেন খালসহ ফসলী জমির মাটি অবৈধ ভেকু মেশিন ব্যবহার করে কাটার পর প্রশাসনের নজরদারী এড়িয়ে উপজেলার ইটের ভাঁটাতে রাত ৯ টা থেকে ভোর পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে প্রায় ১০ টি অবৈধ ট্রাক্টর করে ফসিল জমি ধ্বংস করে মাটি পৌঁছে দিচ্ছেন উপজেলা সদরের দামুড়হুদা আব্দুল ওদুদ শাহ্ ডিগ্রি কলেজের পিছনে হিরন বিক্সস, কোষাঘাটার সিএমবি বিক্সস ও দামুড়হুদা ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজের পিছনে হিরণ বিক্সসে।
প্রতিদিন রাত থেকে ভোর পর্যন্ত লক্ষিপুর গ্রামের ভূমিদস্যু আলী হোসেন সিন্ডিকেটে মাটি কেটে প্রায় ১০ টি অবৈধ ট্রাকচালকের বেপরোয়া গতিতে চলাচলে বিকট শব্দ দূষণ ও বাতাসের ধুলাবালি মিশে বায়ু দূষণে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছ। আলী হোসেন বাদেও উপজেলা সদর চিৎলা, মজারপোতা জয়রামপুর, কার্পাসডাঙ্গা, হোগলডাঙ্গাসহ প্রতিদিন শত শত ট্রাক্টর দিনের বেলাতে সোনা ফলা ফসিল জমির মাটি কেটে বিভিন্ন ইটের ভাঁটাতে দিয়ে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন।দিন পেরিয়ে রাতেও আলী হোসেনের মাটি কাটার ফলে ট্রাক্টরের বিকট শব্দ ও হর্ণের জন্য রাস্তার উভয় পাশের বসতবাড়ির লোকজন চরমভাবে দূর্বিষহ জীবন যাপন করছেন। অবৈধ ট্রক্টরের বিকট শব্দ শুনে শিশুরা কান্না ও ভয়ে ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে উঠছে। ট্রাক্টরের বিকট শব্দে দূষণসহ মাটি রাস্তার পরিবেশ চরম ভাবে দূষিত হচ্ছে। ফলে বসতবাড়ির লোকজন শ্বাসকষ্টজনিত রোগসহ বিভিন্ন জটিল রোগে আক্রান্তের সম্ভাবনা রয়েছে। স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকার ফলে বাড়ীতে পড়তে ছাত্র-ছাত্রীদের পোয়াতে হচ্ছে বিড়ম্বনায়। দিনে ট্রাক্টরের প্রচন্ড শব্দে বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কাজকর্মে হচ্ছেন ব্যাহত। বিকট শব্দে অসুস্থ ব্যক্তিরা আরো বেশী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। অতিমাত্রায় অবৈধ গাড়ী চলাচলে গ্রামীণ জনপদের রাস্তাঘাট ভেঙে যাতায়াতের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। কৃষিবান্ধব সরকারের ভর্তুকি দেয়া ট্রাকর জমিতে চাষাবাদ না করে অবৈধ মাটি-বালিসহ মালবাহী হিসেবে ব্যবহার করায় প্রতিনিয়তই ঘটে চলছে ছোট বড় দুর্ঘটনা। রাতে আলী হোসেনের মাটি বহনকারী ট্রাক্টরের ধ্বাক্কায় যে কোন সময় থেমে যেতে পারেন নাম না জানা তরতাজা প্রতিভাবানের প্রাণ।
উপজেলাতে গত বছরে মাটি বালু কাটা বন্ধ করতে একাধিক বার মানববন্ধন করে মাটি কাট সহ অবৈধ ট্রাক্টর চলাচল বন্ধ করণের দাবী জানিয়েছিলেন চিৎলা-গোবিন্দহুদা গ্রামবাসী। আত্মঘাতী যন্ত্রটি নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় জনসাধারণের মাঝে রয়েছে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড়।
নাম না প্রকাশে একজন শিক্ষক বলেন, দিনের বেলাতে তো অবৈধ ট্রাক্টর একটানা মাটি ভর্তি বেপরোয়া গতিতে অবিরাম দ্রুত গতিতে চলে থাকেন। সর্বদা দুর্ঘটনার আশঙ্কায় রাস্তা পারাপার হয়ে থাকেন পথচারীরা।রাস্তায় হাজার হাজার মানুষ ছোট যানবাহন ঝুঁকি নিয়েই প্রতিনিয়ত রাস্তা চলাচল করতে হচ্ছে। মাটি – বালু ভর্তি অবৈধ ট্রাক্টরগুলোর এত বিকট শব্দে চলাচলের ফলে আশপাশের বসতবাড়ীর ছোট- ছোট শিশুরা দিনের বেলাতে ঘুমাতেও পারে না। এরপর বেশ ক’ একদিন ধরে দেখা যাচ্ছে রাতে মাটি ভর্তি ট্রাক্টরের বেপরোয়া গতি।
দামুড়হুদা সদরের মুক্তারপুর, চিৎলা, হেমায়েতপুরসহ বিভিন্ন গ্রামের সাধারণ পথচারীরা জানান, ট্রাক্টরের ভয়ে রাস্তায় যাতায়াত করা খুবই কষ্টকর।ট্রাকের বিকট শব্দ কানে পৌঁছাতে রাস্তা ছেড়ে দিয়ে পাশে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। গ্রামীণ সহ মেইন সড়কগুলো অনেকটাই অবৈধ মাটি – বালু ভর্তি ট্রাকের দখলে। অবৈধ ট্রাক্টরের অনভিজ্ঞ অবৈধ চালকসহ কম বয়সী চাককেরা পাল্লা দিয়ে দ্রুত গতিতে গাড়ি চালিয়ে আসছেন বিভিন্ন স্থানে। এতে চরম ভাবে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে দিন সহ রাতের বেলাতে মাটি কেটে ছয়লাব করেছে ফসিল জমি। এরপরও আলী হোসেন নামের একজন সহ বেশ কিছু সিন্ডিকেট গত কএকদিন রাত ৯ টা থেকে ভোর পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে পাঠাচোরা খালের জমি সহ মাঠে ফসিল জমি ধ্বংস করে উপজেলা সদরের মেইন রাস্তা দিয়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি ভর্তি মাটি নিয়ে যাচ্ছেন বিভিন্ন ইটের ভাটাতে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার সোহরাব হোসেন জানান, নাক-মুখ দিয়ে ধুলাবালি প্রবেশ করে সর্দি-কাশি, শ্বাসকষ্টের মতো নানা রোগে অসুস্থ হয়ে থাকেন।যাদের এ্যালাজি রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে আরো বেশী সমস্যা।
উপজেলার সচেতন মহলের বলছেন, উপজেলা সদরের মতো জাগাতে নির্বিঘ্নে অবৈধভাবে মাটি ভর্তি ট্রাক্টর রাতে বেপরোয়া গতিতে যে ভাবে চলাচল করছেন তাতে যে কোন সময় ঘটতে পারেন বড় ধরনের দূর্ঘটনা। সদরের বিভিন্ন গ্রামের ফসলি জমি কেটে নেওয়ার জন্য দিন দিন কমতে থাকছে ফসলি জমির পরিমাণ। রাতে যখন মাটি ভর্তি ট্রাক্টর গুলো ছুটে চলে তখন প্রশাসনের মাধ্যমে কঠোর হস্তে দমন করার জন্য জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের নিকট সু- দৃষ্টি কামনা করেছে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT