শুক্রবার, ৩০ Jul ২০২১, ০৪:২০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
খাদ্যশস্য মজুদের রেকর্ড গড়তে যাচ্ছে সরকার চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে করোনা পরীক্ষায় অতিরিক্ত টাকা আদায় বন্ধ আ’লীগের পদ হারানো ব্যবসায়ী হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক, বিভিন্ন অবৈধ সরঞ্জাম উদ্ধার চুয়াডাঙ্গায় জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা মেহেরপুরের ২ গ্রামে হুট করেই মৃত্যুর হিড়িক, ১ মাসে প্রাণ গেল ৪৪ জনের মাদ্রাসার কমিটি নিয়ে দ্বন্দের জেরে আত্রাইয়ে প্রতিপক্ষের হামালায় মা-ছেলেসহ আহত ৩ আত্রাইয়ে সাপের কামড়ে যুবকের মৃত্যু আত্রাইয়ে লকডাউনে মুরগী খামারীরা চরম লোকসানে শিকার নেক সন্তানের জন্য নিঃসন্তান দম্পতি যে দোয়া পড়বেন যে তিন কাজের জন্য বান্দার জাহান্নাম অবধারিত

জীবননগরে চাকরী দেওয়ার নামে ষ্টার গোল্ড ইলেকট্রোনিক্স অ্যাণ্ড এগ্রোফার্ম কোম্পানীর বিরুদ্ধে অর্ধকোটি টাকা আত্মসাত’র অভিযোগ

জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি:

জীবনগরে ষ্টার গোল্ড ইলেকট্রোনিক্স অ্যাণ্ড এগ্রো ফার্মের কর্মকর্তার চাকরীর নামে জামানতের ঠাকা নিয়ে উধাও হওয়া সংবাদ প্রকাশের পর উপজেলা জুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। কোম্পানীর প্রতারিত ভুক্তভোগী চাকরী জীবীদের দেয়া তথ্যে শতাধিক যুবকের তথ্য পাওয়া গেলেও সংবাদ প্রকাশের পর ধীরে ধীরে তার সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। প্রতারক চক্রের খপ্পড়ে পড়ে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে অনেক প্রতারিত যুবকের তথ্য বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে। অনেকেই সংবাদ শোনার পর অপ্রকাশিত ঘটনা ধামাচাঁপা দিতে নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছেন। তবে ধারণা করা হচ্ছে অর্ধকোটি টাকা সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুন থেকে তিনগুন হতে পারে।

শিক্ষিত বেকার যুবকদের কাছ থেকে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে স্টার গোল্ড ইলেকট্রোনিকস অ্যাণ্ড এগ্রো ফার্ম লিমিটেড নামের একটি ভুয়া কোম্পানীর কর্মকর্তা পরিচয়দানকারী প্রতিষ্ঠানের কথিত শেয়ার হোল্ডার মালিক ম্যানেজিং ডাইরেক্টর নাসির উদ্দীন, ডইরেক্টর সাকিল আহমেদ ও ডাইরেক্টর দাউদ আলী। এদের মধ্যে ম্যানেজিং ডাইরেক্টর নাসির উদ্দীন কোম্পানীটির ২হাজার শিয়ার হোল্ডারের মালিক। আর তার পিতা দাউদ আলী কোম্পানীর ১হাজার শিয়ার হোল্ডারের মালিক। অপর ডইরেক্টর সাকিল আহমেদ কোম্পানীর ১হাজার শিয়ার হোল্ডারের মালিক।

ম্যানেজিং ডাইরেক্টর নাসির উদ্দীন ও তার পিতা ডাইরেক্টর দাউদ আলী দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানার ছয়ঘরিয়া গ্রামের বাসীন্দা। এ ছাড়া ডইরেক্টর সাকিল আহমেদ দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানার পারকৃঞ্চপুর গ্রামের সোহরাব হোসেনের ছেলে। প্রতিষ্ঠানটি শুরুতেই জীবননগর উপজেলার আঁশতলা পাড়া গ্রামের জনৈক ইকতিয়ার উদ্দীনের দুইতলা বাসা ভাড়া নিয়ে প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যাবহার করে সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়ে জোনাল অফিস খুলে বসেন।

প্রাতিষ্ঠানিকভাবে চাকরী দেওয়ার জন্য এলাকার বেকার শিক্ষিত যুবকদের মোটা বেতনের প্রলোভন দেখায়। পরে চাকরী জামানত স্বরুপ বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নেয়। তাদের প্রলোভনে পড়ে শতাধিক বেকার যুবক ভবিষ্যতের আশায় জামানতের টাকা দিয়ে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে চাকরী নেয়। আঁধুনিকতার ছোঁয়ায় অফিসটি সাজানো হলেও প্রতিটি আসবাবপত্র ও মালামাল কেনা হয় বাকীতে। ৩মাস পার হলেও নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বেতন পাই নি। উর্ধতন কর্মকর্তা পরিচয় দানকারীদের সন্দেহ জনক কথাবার্তা ও আচারনে ভুক্তভোগী কর্মকর্তাদের মনে নানা প্রশ্ন দেখা দেয়। অবশেষে ভুয়া প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তা ও কথিত প্রতিষ্ঠানের মালিকদের নামে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং জীবননগর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ষ্টার গোল্ড ইলেকট্রোনিক্স অ্যাণ্ড ষ্টার গোল্ড এগ্রো ফার্ম লিমিটেডের ম্যানিজিং ডাইরেক্টর নাসির উদ্দীনের সাথে মুঠোফোনে (০১৭৯৬৯১৪১৪৯) যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এ ছাড়াও ডাইরেক্টর শাকিল আহম্মেদের মুঠোফোনে (০১৯৭৬২৫৯৫৩৫) একাধিকবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

ক্ষতিগ্রস্থ ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, জীবননগর উপজেলার আশতলাপাড়ায় ষ্টার গোল্ড ইলেকট্রোনিক্স অ্যাণ্ড ষ্টার গোল্ড এগ্রোফার্ম জোনাল অফিসের নামে গত ২০২০ সালের ১ অক্টোবর ভাড়া নেয় প্রতারক চক্রটি। স্থানীয় শিক্ষিত বেকার যুবকরা প্রতিষ্ঠানটিতে চাকুরী করতে আগ্রহ প্রকাশ করলে ভুয়া ওই কোম্পানীর কর্মকর্তারা তাদের কাছ হতে ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত জামানত নেয়। আর এভাবে তারা উপজেলার শতাধিক বেকার যুবকের কাছ থেকে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। জামানতের টাকা দেওয়া ওই যুবকরা ভুয়া নিয়োগপত্র হাতে পেলেও তাদেরকে এখনো পর্যন্ত কোনো কাজ ও বেতন দেয়া হয় নি। এক পর্যায়ে বেতন পরিশোধের জন্য চাপ সৃষ্টি করলে ভুয়া ওই কোম্পানীর কর্মকর্তারা অফিসে আসা বন্ধ করে দেয়। একই সাথে ভুক্তভোগী কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মোবাইল ফোন রিসিভ করা থেকে বিরত থাকেন। অবশেষে তারা প্রতিষ্ঠানের অফিসে তালা লাগিয়ে দেন।

জীবননগর উপজেলার আঁশতলা পাড়ার ক্ষতিগ্রস্থ ভুক্তভোগী কথিত একাউন্ট অফিসার নাসের আলী জানান, আমার কাছ থেকে সূর্যের হাঁসি ক্লিনিকের কর্মরত মোস্তাক আহম্মেদ ষ্টারগোল্ড ইলেকট্রোনিক্স কোম্পানীতে লোক নিয়োগ করা হবে বলে জানান। তার কথা মতো চাকরীর জামানত হিসাবে ১৫ হাজার টাকা দিই। আমার মতো অনেকেই মোস্তাক আহম্মেদের কাছে টাকা দিয়েছেন।

খয়েরহুদা গ্রামের সুজন হোসেন জানান, সূর্যের হাঁসি চিহ্নিত ক্লিনিকের কর্মকর্তা মোস্তাক আহম্মদের কাছ থেকে জানতে পারি ষ্টার গোল্ড ইলেকট্রোনিক্স কোম্পানিতে লোক নিয়োগ করা হবে। তারপর আমি ওই অফিসে যোগাযোগ করে মোস্তাক আহম্মদের মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা জামানত দিয়ে ২০ হাজার টাকা বেতনে শাখা ব্যবস্থাপকের চাকুরী নিই। কিন্তু আজ পর্যন্ত আমাকে কোনো কাজ দেওয়া হয় নি। সেই সাথে কোম্পানী পক্ষ থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো বেতন পাই নি। আমার মনে হচ্ছে আমি প্রতারণার শিকার হয়েছি।

একই অভিযোগ করেন, ভুয়া ওই কোম্পানীর এরিয়া ম্যানেজার হাসিব ইকবাল। তিনি জানান, মোস্তাক আহম্মদের মাধ্যমে আমিসহ অনেকেই ৩০ হাজার থেকে ১২ হাজার টাকা পর্যন্ত জামানত দিয়েছে চাকুরী নেওয়ার জন্য। কিন্তু এখনো পর্যন্ত আমরা কোন বেতন পাই নি। বেতন না পাওয়ার কারণে জানতে পারি চাকুরী নেওয়ার জন্য জামানত হিসেবে নাজিবুল হক ২০ হাজার টাকা, নাসের আলী ২০ হাজার, রুবিনা আক্তার ১৫ হাজার, রেবেকা সুলতানা ২০ হাজার, নাদিয়া জাহান তানিয়া ১৫ হাজার, আশরাফুল হক ১০ হাজার, সাগরিকা আক্তার ৮ হাজার টাকাসহ শতাধিক ব্যক্তি টাকা দিয়েছেন। আর এভাবেই প্রতারক চক্রটি শতাধিক চাকুরী প্রত্যাশী যুবকদের কাছ থেকে জামানত হিসেবে বিপুল পরিমান টাকা সংগ্রহ করেছে।

জীবননগর জোনাল অফিসের ম্যানেজার সুজন হুসাইন জানান, এরিয়া ম্যানেজার পরিচয় দানকারী নাসির উদ্দীন ও শাকিল আহম্মেদ আমাদের কাছ থেকে চাকরী দেওয়ার নামে জামানতের টাকা গ্রহণ করেন। কিন্তু পরে জানতে পারি জনৈক শাকিল আহম্মেদ দামুড়হুদা উপজেলার সোহরাব হুসাইনের ছেলে। তিনি কোম্পানীর একজন শেয়ার হোল্ডার। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য যে সমস্ত জমি ও পুকুর কেনার কথা বলা হয়েছিল সেগুলো ছিল একটি সাজানো নাটক। এসব বিষয় গুলো আমাদের কাছে সন্দেহ মনে হলে আমরা প্রশাসনের দারস্থ হই।

এ.এইচ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT