সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় কৃষকের লাশ উদ্ধার গাংনীতে এক কৃষককে ফাঁসানোর অভিযোগ আজ ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর দিবস ॥ সীমিত পরিসরে পালনের প্রস্তুতি উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান টুপি সহিদুলের কিল-ঘুষিতে বৃদ্ধ ইস্রাফিল নিহত জুয়ার আসর থেকে নগদ টাকা-জুয়াখেলার সরঞ্জামসহ গ্রেফতার-২ বেগমপুরের হরিশপুর সড়কের গাছ চুরিকালে চোর পাকড়াও দামুড়হুদার ডুগডুগী কাঁচাবাজার তদারকী করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা চুয়াডাঙ্গায় করোনা পরিস্থিতিতে ভ্রাম্যমাণ সবজি ভ্যান কার্যক্রমের উদ্বোধন গাংনীর কাজীপুরে অগ্নিকাণ্ডে ৪টি বসতবাড়ী ভস্মীভূত ॥ ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি ঝিনাইদহের গণিত-পদার্থ বিজ্ঞানের এক সময়ের মেধাবী ছাত্রের দিন কাটে পথে পথে

কেরুজ শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন

চীফ রিপোর্টারঃ

আজ কেরু চিনিকলের সিবিএ নির্বাচন। ইতিমধ্যে প্রচার প্রচারনা বন্ধ হয়ে গেছে। প্রধান ২ টি পদের লড়াইকে ঘিরে চলে জল্পনা- কল্পনা। কে হবেন সভাপতি আর কে হবেন সাধারণ সম্পাদক। ৬ মার্চ ছিল প্রার্থীদের শো ডাউন মিছিল। ভোটার সংখা ১০৮৮ হলেও সভাপতি পদের দুজন আর সম্পাদক পদের দুজনের শোডাউনে উপস্থিতির সংখ্যা প্রায় ৩ গুন। কোথা থেকে এলো এত জনতা? সমর্থক, শুভাকাংখী, আত্নীয় বা নিজ নিজ গ্রামের মানুষরাও সামিল হয়েছিল এই মিছিলে। প্রতিযোগীতার পালায় কার মিছিল কত বড় বা জনসমাগম কার বেশি এটা জানান দিতেই শোডাউন। ভোটার ক”জন সেটা মুখ্য বিষয় নয়। ভোটার হোক বা ভাড়াটে হোক মিছিল বড় করে প্রতিপক্ষকে মানসিক পরাস্ত করা মুল লক্ষ্য।
এবার নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন ২ জন। এরা হলেন বর্তমান সভাপতি তৈয়ব আলী এবং প্রাক্তন সভাপতি আজিজুল হকের পুত্র ফিরোজ আহমেদ সবুজ। তৈয়ব আলীর পাশে থেকে সহযোগীতা করছেন প্রাক্তন সভাপতি হাফিজুর রহমান এবং তার অনুসারী যারা কর্মরত আছে তারা, প্রাক্তন সেক্রেটারী সহিদুর রহমানের সংগঠনের কিছু শ্রমিক কর্মচারী যারা কর্মরত আছেন, বর্তমান সহ সভাপতি এবং প্রাক্তন প্রয়াত সভাপতি মুজাহিদের পুত্র মোস্তাফিজুর রহমান এবং তার কিছু অনুসারী, পাশাপাশি নেপথ্যে থেকে নির্বাচনকে যিনি দীর্ঘদিন কলকাঠি নাড়াতেন এবং এখনও গোপনে কিছু শ্রমিক কর্মচারীকে আর্থিকভাবে সহযোগীতা করে আসছেন বলে জনশ্রুতি আছে এজেন্ট হান্নান খাঁন। এতগুলো ব্যক্তিত্ব এবং তাদের সংগঠনের ভোটারের সমন্বয়ে যে আখেরি মিছিল তৈয়ব আলী করেছেন তার তুলনায় সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মাসুদুর রহমানের একক সংগঠনের মিছিলে কিছুটা হলেও ভোটারের সংখ্যা বেশি লক্ষ্য করা গেছে। এদিকে সাধারন সম্পাদক প্রার্থী মনিরুল ইসলাম প্রিন্সের সংগঠনে ভোটার আছে দেড়শো থেকে ১৬০ জন ওদিকে সভাপতি প্রার্থী সবুজ সংগঠনেও ভোটার অনুর্ধ ২ ‘শ জন। সমীকরণ বলছে মাসুদ যাকে সভাপতি করতে চাইবে সেই হবে বিজয়ী। ইতিপূর্বের নির্বাচনের আলোকে দেখা গেছে সভাপতি প্রার্থীর সাথে সাধারন সম্পাদক প্রার্থীর গোপন আঁতাত হয় কখনও প্রকাশ্যে আবার কখনও গোপনে। তবে এখনও পর্যন্ত কার সাথে কে আঁতাত করবে তা এখনও প্রকাশ হয়নি। হয়তো ভোটের দিন প্রকাশ্যে চলে আসবে। সমীকরণ বলছে এবার সবুজের সাথে মাসুদ এবং তৈয়বের সাথে মনিরুল ইসলাম প্রিন্সের সমন্বয়ের সম্ভবনা রয়েছে। গত কয়েক মাস আগে মাসুদের ছেলে ওয়্যার হাউজ এজেন্ট রুপমের শ্রীমঙ্গল থেকে চিটাগাং এবং পরবর্তীতে পাবনা বদলী করা হয়। যদিও পুনরায় রুপম চিটাগাং পণ্যাগারে ফিরে গেছে তার বদলি ঘটনার নেপথ্যে সভাপতি তৈয়ব আলীর যোগসুত্র ছিল বলে মাসুদের ধারনা। আর যে কারনেই মাসুদ- তৈয়ব জুটি গত পর পর দুটি নির্বাচনে প্যানেলভুক্ত ক্ষমতায় এসেছে এবার তার ব্যতিক্রম ঘটবে বলে মনে হচ্ছে। তাতে এবার মাসুদ- সবুজ গোপন প্যানেলের সম্ভবনাকে উড়িয়ে দিচ্ছে না সমীকরণ। এই যদি হয় তবে স্বাভাবিক ভাবেই তৈয়ব আলিকে জোট বাঁধতে হবে প্রিন্সের সাথে। আর কয়েক ঘন্টা অপেক্ষা করতে হবে কে কে বসবে কেরু সিবিএ মসনদে? সেটাই এখন দেখার পালা।

 

মোস্তফা কামাল শ্রাবন/এ.এইচ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT