মঙ্গলবার, ২৭ Jul ২০২১, ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন

শ্রমিকদের নিরাপত্তা ও ইনস্যুরেন্সের ব্যবস্থা না থাকায় জনমনে ক্ষোভ

ষ্টাফ রিপোর্টার:

অবশেষে মৃত্যুর কাছে হার মানলো চুয়াডাঙ্গার সুবদিয়ায় অবস্থিত বহুজাতিক কোম্পানী সিপি বাংলাদেশ লিমিটেডের বিন বিষ্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ দুই শ্রমিকের একজন তানজিন আরিফ সজীব।  বুধবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। নিহত তানজিন আরিফ সজীব চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার পদ্মবিলা ইউনিয়নের বেগনগর গ্রামের আব্দুর রশিদের ছোট ছেলে। গতকাল বৃহস্পতিবার বাদ জোহর বেগনগর গ্রামের ঈদগাহ ময়দানে জানাযা শেষে গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়। অপরজন চুয়াডাঙ্গা সদরের মানিকদিহি পাড়ার গোলাম মন্ডলের ছেলে আব্দুল্লাহ আল মামুন। সে বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক।
এলাকাবাসী জানায় চুয়াডাঙ্গা সদরের পদ্মবিলা ইউনিয়নের বেগনগর গ্রামের আব্দুর রশিদের ছোট ছেলে তানজিল আরিফ সজীব (২৯) ও শংকরচন্দ্র ইউনিয়নের মানিকদিহি পাড়ার (ফিসারী পাড়া) গোলাম মন্ডলের ছেলে আব্দুল্রাহ আল মামুন দির্ঘদিন ধরে সুবদিয়ায় অবস্থিত বহজাতিক কোম্পানি সিপি বাংলাদেশ লিমিটেডের শ্রমিক হিসাবে কাজ করতেন। গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে কর্মরত থাকা অবস্থায় ভুট্টা ও সোয়াবিনের বিনে সমস্যা দেখা দেয়। এ সময় বিনটি পরিষ্কার করতে গেলে বিনটি ভয়াবহ বিষ্ফোরনের ঘটনা ঘটে। এতে মারাত্মক ভাবে দগ্ধ হয় তানজিন আরিফ সজীব ও আব্দুল্লাহ আল মামুন। সংগে সংগে তাদেরকে উদ্দার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের দুজনকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে রেফার্ড করেন। দুদিন ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত পরশু বুধবার বেলা ৪টার সময় তানজিন আরিফ সজীব মারা যান। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে তানজিল আরিফ সজীবের মৃতদেহ বেগনগর গ্রামের বাড়ীতে পৌছিলে সংবাদ পেয়ে হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসে সজীবকে দেখতে। এ সময় স্বজনদের কান্নায় এলাকার বাতাস ভারী হয়ে উঠে। সজীবের একমাত্র মেয়ে নিধি (৪) বুঝতে পারেনি তার বাবা মারা গেছেন। বাবার মৃতদেহ ও এলাকার মানুষের ভিড় দেখে সকলের দিকে ফ্যাল ফ্যাল করে তাকাচ্ছিল সে। সজীবের স্ত্রী নিশি বর্তমানে অন্ত:স্বত্তা। স্বামীকে হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার বাদ জোহর বেগনগর ঈদগাহ ময়দানে জানাযা শেষে গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়। এ সময় ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আজিবর রহমানসহ এলাকা শত শত মুরসুল্লিরা জানাযায় অংশ গ্রহন করেন। সিপি বাংলাদেশে শ্রমিকদের জন্য কোন নিরাপত্তার ব্যবস্থা না থাকা ও শ্রমিকের জন্য কোন ইনস্যুরেন্সের ব্যবস্থা না থাকায় এলাকার জনমনে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অবিলম্বে শ্রমিকের জন্য ইনস্যুরেন্স ব্যবস্থা চালু করার দাবি জানিয়েছে এলাকার সচেতন মহল।

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT