মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১১:০২ অপরাহ্ন

শিরোনাম
মেহেরপুর জেলা ছাত্রদলের প্রতিকী অনশন পালন মেহেরপুরে গাঁজা ও বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধার,আটক-১ সিআইপি নির্বাচিত হলেন দিলীপ কুমার আগরওয়ালা জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের কার্যনির্বাহী পরিষদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন এসএসসি-২০১৩ ও এইচএসসি-২০১৫ ব্যাচের পুনর্মিলনী ১১ ফেব্রুয়ারি: চলছে রেজিস্ট্রেশন মেহেরপুরের গাংনীতে ১২ কেজি গাঁজাসহ আটক-৩ চাঁপাইনবাবগঞ্জ দাফনের পাঁচমাস পর কবর থেকে উত্তোল করা হলো লাশ দর্শনায় “যুব সাহায্য সংস্থা ব্যাচ-৮৭”র কফি হাউজের উদ্বোধন ভেড়ামারা থানা পুলিশের অভিযানে বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্টভূক্ত ১২ জন আসামী গ্রেফতার গাংনীতে ডি বি পুলিশের হাতে দুই পলাতক আসামি আটক

ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদান চেপে রাখা যায়নি: প্রধানমন্ত্রী

ভাষা আন্দোলনের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু যে সরাসরি জড়িত ছিলেন সেই সত্য চেপে রাখা যায়নি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পদক-২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ভাষা আন্দোলন যে তিনি (বঙ্গবন্ধু) শুরু করেছিলেন এবং সেখানে তার যে অবদান রয়েছে—এই কথাটা আমাদের অনেক জ্ঞানী-গুণী ও বুদ্ধিজীবীও এটা মানতে রাজি হতেন না। তাদের কথা হলো—‘শেখ মুজিব তো জেলে ছিল, সে আবার ভাষা আন্দোলন করল কীভাবে?’। জেলে তিনি গিয়েছিলেন কেন? তাকে তো গ্রেপ্তার করা হয়েছিল এই ভাষা আন্দোলনটা শুরু করলেন এবং ব্যাপকভাবে প্রচার শুরু করলেন, সে কারণে তিনি বারবার গ্রেপ্তার হন। এটা কিন্তু সম্পূর্ণ বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে লেখা ডকুমেন্ট, রিপোর্ট। সেখান থেকে কিন্তু আমাদের ইতিহাসের অনেক সত্য বেরিয়ে এসেছে।’

তিনি বলেন, পাকিস্তানের গোয়েন্দা শাখা তাদের প্রতিবেদনে ভাষা আন্দোলনের জন্য বঙ্গবন্ধুর সব আন্দোলন বর্ণনা করেছে এবং সেই প্রতিবেদনগুলো ধীরে ধীরে বই আকারে প্রকাশিত হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একুশে ফেব্রুয়ারি যখন আমরা আমাদের ভাষা দিবস হিসেবে ব্যবহার করছি, শহীদ দিবস হিসেবে পালন করে যাচ্ছি এবং ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। আমরা সেই সাথে সাথে সারাবিশ্বের সকল ভাষাপ্রেমীদের প্রতিও আমি শ্রদ্ধা জানাই।’

‘আন্তর্জাতিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে আমাদের অবশ্যই অন্য ভাষা শিখতে হবে, সেই সাথে সাথে মাতৃভাষাও আমাদেরকে শিখতে হবে’, যোগ করেন তিনি।
বাংলাদেশে বসবাসরত বিভিন্ন নৃ-গোষ্ঠীর ভাষাও যেন সংরক্ষণ করা যায় এবং তারা যেন সেই ভাষায় শিক্ষা নিতে পারে, সেজন্য সরকারের প্রচেষ্টার কথাও জানান শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে মাতৃভাষা সংরক্ষণ ও বিকাশে অবদানের জন্য প্রথমবারের মতো তিন ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পদক’ প্রদান করেছে সরকার। তারা হলেন অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, মথুরা বিকাশ ত্রিপুরা, উজবেকিস্তানের গবেষক ইসমাইলভ গুলম মিরজায়েভিচ। এছাড়া পদক পেয়েছে বলিভিয়ার সংগঠন ‘অ্যাক্টিভিজমো লেংকুয়াস’।

সূত্র: খোলাকাগজ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি