রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৯:২৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম
ঝিনাইদহ হরিণাকুণ্ডুতে বাল্যবিয়ে দেওয়ার দায়ে কনের সম্পর্কে দাদা ও চাচাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড ঝিনাইদহে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী নিহত মেহেরপুর গাংনীর বামন্দী হৃদয় ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সবই ভূয়া পুলিশ সদস্যদের মোবাইল ফোন ব্যবহারে কঠোর নির্দেশনা বাংলাদেশে চলতি বছরেই চালু হবে ফাইভ-জি ডিজিটাল বাংলাদেশ যখন গড়েছি, নিরাপত্তা দেওয়াও আমাদের দায়িত্ব- প্রধানমন্ত্রী দেশেই তৈরী হবে সাপের বিষরোধক, গবেষণা চলছে রাজশাহীর পবায় আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আজ আমি চিৎকার করিয়া কাঁদিতে চাহিয়া, করিতে পারিনি চিৎকার লালমনিরহাটে আটিয়া কলার গাছ বিলুপ্তির পথে

ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদান চেপে রাখা যায়নি: প্রধানমন্ত্রী

ভাষা আন্দোলনের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু যে সরাসরি জড়িত ছিলেন সেই সত্য চেপে রাখা যায়নি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পদক-২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ভাষা আন্দোলন যে তিনি (বঙ্গবন্ধু) শুরু করেছিলেন এবং সেখানে তার যে অবদান রয়েছে—এই কথাটা আমাদের অনেক জ্ঞানী-গুণী ও বুদ্ধিজীবীও এটা মানতে রাজি হতেন না। তাদের কথা হলো—‘শেখ মুজিব তো জেলে ছিল, সে আবার ভাষা আন্দোলন করল কীভাবে?’। জেলে তিনি গিয়েছিলেন কেন? তাকে তো গ্রেপ্তার করা হয়েছিল এই ভাষা আন্দোলনটা শুরু করলেন এবং ব্যাপকভাবে প্রচার শুরু করলেন, সে কারণে তিনি বারবার গ্রেপ্তার হন। এটা কিন্তু সম্পূর্ণ বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে লেখা ডকুমেন্ট, রিপোর্ট। সেখান থেকে কিন্তু আমাদের ইতিহাসের অনেক সত্য বেরিয়ে এসেছে।’

তিনি বলেন, পাকিস্তানের গোয়েন্দা শাখা তাদের প্রতিবেদনে ভাষা আন্দোলনের জন্য বঙ্গবন্ধুর সব আন্দোলন বর্ণনা করেছে এবং সেই প্রতিবেদনগুলো ধীরে ধীরে বই আকারে প্রকাশিত হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একুশে ফেব্রুয়ারি যখন আমরা আমাদের ভাষা দিবস হিসেবে ব্যবহার করছি, শহীদ দিবস হিসেবে পালন করে যাচ্ছি এবং ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। আমরা সেই সাথে সাথে সারাবিশ্বের সকল ভাষাপ্রেমীদের প্রতিও আমি শ্রদ্ধা জানাই।’

‘আন্তর্জাতিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে আমাদের অবশ্যই অন্য ভাষা শিখতে হবে, সেই সাথে সাথে মাতৃভাষাও আমাদেরকে শিখতে হবে’, যোগ করেন তিনি।
বাংলাদেশে বসবাসরত বিভিন্ন নৃ-গোষ্ঠীর ভাষাও যেন সংরক্ষণ করা যায় এবং তারা যেন সেই ভাষায় শিক্ষা নিতে পারে, সেজন্য সরকারের প্রচেষ্টার কথাও জানান শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে মাতৃভাষা সংরক্ষণ ও বিকাশে অবদানের জন্য প্রথমবারের মতো তিন ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠানকে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পদক’ প্রদান করেছে সরকার। তারা হলেন অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, মথুরা বিকাশ ত্রিপুরা, উজবেকিস্তানের গবেষক ইসমাইলভ গুলম মিরজায়েভিচ। এছাড়া পদক পেয়েছে বলিভিয়ার সংগঠন ‘অ্যাক্টিভিজমো লেংকুয়াস’।

সূত্র: খোলাকাগজ

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT