বৃহস্পতিবার, ২৯ Jul ২০২১, ০৯:৪৫ অপরাহ্ন

খুলনার দাকোপে ১৪০ পরিবার পেল প্রধানমন্ত্রীর উপহার”স্বপ্নের নীড়”

স্বপন কুমার রায়, খুলনা থেকেঃ

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে পাকা ঘর পেল দাকোপ উপজেলার ১৪০ টি হতদরিদ্র পরিবার। আজ ২৩ জানুুয়ারী শনিবার সকাল দশটায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের নিকট গৃহ হস্তান্তর কার্যক্রম ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে শুভ উদ্বোধন করেন।
উপজেলা প্রশাসনের হলরুম কক্ষে অনুষ্ঠিত শুভ উদ্বোধন কার্যক্রমের দাকোপ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিন্টু বিশ্বাসের সভাপতিত্বে দাকোপ ভূমি ও গৃহহীনদের জমি ও গৃহ প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনসুর আলী খান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আবুল হোসেন, চালনা পৌর মেয়র সনত কুমার বিশ্বাস, থানা অফিসার ইনচার্জ সেকেন্দার আলী। উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সুরাইয়া সিদ্দিকা সঞ্চালনায় উপকার ভোগী ১৪০ পরিবার সহ উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের সকল দপ্তর প্রধানগন, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যানগন, সকল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানগন, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ, ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাগন, উপজেলা প্রেস ক্লাব ও রিপোর্টার্স ক্লাব সাংবাদিকবৃন্দ। উপজেলার ১৪০ ভূমি ও গৃহহীন পরিবার জমি ও গৃহ পেয়ে দেশরন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।
প্রধানমন্ত্রীর আশ্রায়ন-২ প্রকল্প এর আওতায় উপজেলার সরকারি খাস জমিগুলোতে নির্মান করা হয়েছে এসব ঘর।দাকোপ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিন্টু বিশ্বাসের প্রতক্ষ্যতদারকির মাধ্যমে
সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হয়েছে ঘর নির্মানের কাজ।আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজের মান ঠিক রাখার জন্য কমিটিতে সরকারি কর্মকর্তা,প্রকৌশলী, রাজনৈতিক ব্যক্তিদেরও রাখা হয়েছে। নিয়মিত নির্মাণকাজ পর্যবেক্ষন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার প্রকল্প আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট এ সেমিপাকা ঘরগুলো প্রস্তুত করা হয়েছে।দুই শতাংশ খাসজমির ওপর ১৯ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৯ ফুট প্রস্থের দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা।ঘর রেজিস্ট্রি করা হবে স্বামী-স্ত্রীর যৌথ নামে।দলিলে দুজনেরই নাম ও ছবি থাকছে।
এই প্রকল্পের ভিক্ষুক,প্রতিবন্ধী,বিধবা, স্বামী পরিত্যাক্তা,প্রবীণ ভূমিহীন ব্যক্তিদের উপকারভোগী হিসেবে বাছাই করা হয়েছে।একটি ঘর শুধু একটি আশ্রয়স্থল নয়, যার কিছুই ছিল না এই ঘরটি তার জন্য আত্মমর্যাদার।১৪০ টি গৃহহীন সদস্য পেল আশ্রয়স্থল।ফলে ওই পরিবার হয়ে উঠবেন আত্নপ্রত্যয়ী এবং খুঁজে পাবেন নিজের পায়ে দাঁড়ানোর অবলম্বন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT