বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৮:২৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম
চুয়াডাঙ্গায় পুলিশ সুপারের মধ্যস্থতায় আছমিনা খাতুন ফিরে পেল তার সুখের সংসার চুয়াডাঙ্গায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষঃ  নারীসহ আহত-২ঃ থানায় অভিযোগ চুয়াডাঙ্গায় প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে পরকিয়া: প্রতিবাদ করায় পিস্তল থেকিয়ে তুলে নিয়ে কুপিয়ে জখম: আটক-১ ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুর মেইন বাসস্ট্যান্ডে পরিত্যাক্ত অবস্থায় পাবলিক টয়লেট, জনদূর্ভোগ সৃষ্টি চুয়াডাঙ্গায় ভুট্টা চুরির অভিযোগে শিশু মেয়েকে এলোপাতাড়ী মারধরের অভিযোগ বাবুর বিরুদ্ধে ঝিনাইদহের বাজার গোপালপুরে মাদ্রাসা শিক্ষকের হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার মেহেরপুরে পুলিশ মেমোরিয়াল ডে পালিত মেহেরপুরে ৩ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী কারাগারে কোটচাঁদপুর পৌরসভার নব-নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের দায়িত্বভার গ্রহণ গাংনীতে গাঁজাসহ আটক-১

মুজিবনগর-কোলকাতা স্বাধীনতা সড়কের কাজ অচিরেই শুরু হবে- এলজিআরডি মন্ত্রী

মুজিবনগর থেকে, সোহাগ মণ্ডল:

এলজিআরডি মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, মুজিবনগর আম্রকানন আমাদের জাতিগতভাবে একটি স্মৃতির জায়গা। অত্যান্ত আবেগের একটি জায়গা। এখানকার স্মৃতি যেমনি সংরক্ষণ করা দরকার তেমনি এই রাস্তা দিয়ে আমাদের প্রথম সরকারের মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ এসেছিলেন যা স্মৃতি হয়ে আছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই এই রাস্তাটি আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।
বৃহস্পতিবার সকালে মেহেরপুরের মুজিবনগরে ঐতিহাসিক স্বাধীনতা সড়ক (মুজিবনগর-কোলকাতা) পরিদর্শনকালে তিনি এ কথাগুলো বলেন।
১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল এ সড়ক দিয়ে বাংলাদেশের প্রথম সরকারের মন্ত্রীপরিষদ সদস্যবৃন্দ ভারত থেকে মুজিবনগরে এসে শপথ গ্রহণ করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণে স্বাধীনতা সড়কটি আগামী মার্চে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উদ্বোধনের কথা রয়েছে। এর মধ্য দিয়ে মুজিবনগরের সাথে কোলকাতা সড়কে যাতায়ত শুরু হবে।
রাস্তাটি মানসম্মতভাবেই উন্নয়ন করতে অচিরেই কাজ শুরু হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, পচাত্তরে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরেই তারা স্বাধীনতার অনেক স্মৃতি বিজড়িত স্থানকেই তারা সমর্থন করেন নাই। তেমনিভাবে এটাও অবহেলিত ছিল। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যেমনিভাবে সম্মান করা হচ্ছে তেমনিভাবে যুদ্ধকালীন স্মৃতিবিজড়িত স্থানগুলোকেও সংরক্ষণ করা হচ্ছে।
যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নের পূর্ব শর্ত উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, রাস্তাটি হলে এখান দিয়ে দু’দেশের মানুষ যাতায়ত করতে পারবেন। রাস্তাটি হলে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সার্বিক বিষয়ের উন্নয়ন হবে অপরদিকে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণহবে। 
পরিদর্শনকালে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরহাদ হোসেন বলেন, প্রধামন্ত্রীর প্রতিশ্রুতিতে মুজিবনগরে এক হাজার কোটি টাকার কাজ হবে তার নকশা প্রায় চুড়ান্ত। খুব দ্রুত এটি একনেকে তোলা হবে। আশা করা যায় আগামী বছরের প্রথম দিকে কাজ শুরু হবে। এটি বাস্তবায়ন হলে মুজিবনগর থেকে মুক্তিযুদ্ধের পুরো ইতিহাস দেশ বিদেশের দর্শনার্থীদের সামনে তুলে ধরা যাবে।
অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান, মেহেরপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম রসুল , জেলা প্রশাসক ড. মুনছুর আলম খান, পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলি, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ইব্রাহিম শাহীন। জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আয়ূব হোসেন, মেহেরপুর পৌরসভার পৌর মেয়র মাহাফুজুর রহমান (রিটন), উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউদ্দিন বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমাম হোসেন মিলু, মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন সরকার, মুজিবনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুল হাসেমসহ সরকারী কর্মকর্তাবৃন্দ ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে ঢাকা থেকে মুজিবনগর পৌঁছে মুজিবনগর স্মৃতি সৌধে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন এলজিআরডি মন্ত্রী ও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী। পরিদর্শন শেষে মুজিবনগর স্মৃতি কমপ্লেক্সে জেলা প্রশাসন আয়োজিত স্বাধীনতা সড়ক (মুজিবনগর-কোলকাতা)বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচন সভা অনুষ্ঠিত হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT