সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় কৃষকের লাশ উদ্ধার গাংনীতে এক কৃষককে ফাঁসানোর অভিযোগ আজ ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর দিবস ॥ সীমিত পরিসরে পালনের প্রস্তুতি উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান টুপি সহিদুলের কিল-ঘুষিতে বৃদ্ধ ইস্রাফিল নিহত জুয়ার আসর থেকে নগদ টাকা-জুয়াখেলার সরঞ্জামসহ গ্রেফতার-২ বেগমপুরের হরিশপুর সড়কের গাছ চুরিকালে চোর পাকড়াও দামুড়হুদার ডুগডুগী কাঁচাবাজার তদারকী করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা চুয়াডাঙ্গায় করোনা পরিস্থিতিতে ভ্রাম্যমাণ সবজি ভ্যান কার্যক্রমের উদ্বোধন গাংনীর কাজীপুরে অগ্নিকাণ্ডে ৪টি বসতবাড়ী ভস্মীভূত ॥ ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি ঝিনাইদহের গণিত-পদার্থ বিজ্ঞানের এক সময়ের মেধাবী ছাত্রের দিন কাটে পথে পথে

জীবননগরে  মধ্যবয়সী বিধবাকে শারীরিক নির্যাতন: বিচার চেয়ে পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত আবেদন

ষ্টাফ রিপোর্টার:

জীবননগর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জেরে মধ্যবয়সী এক বিধবা নারী, শারিরীক নির্যাতনের শিকার হয়ে গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের কার্যলয়ে নারী নির্যাতনের বিচার চেয়ে লিখিত আবেদন করেছেন।
আবেদন সূত্রে জানা যায়, জীবননগর উপজেলার কেডিকে ইউনিয়নের বাসীন্দা (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) অসহায় বিধধাকে একই উপজেলার পাশ্ববর্তী কুলতলা গ্রামের বাসীন্দা মৃত আফছার মুন্সীর ছেলে আজিজুল মুন্সী (৬০) নিজে এবং সহযোগী দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী নারী জীবননগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। থানা পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বিচার সালিশী করে আজিজুল মুন্সীকে সতর্ক করে প্রাথমিক সাজা দিয়ে আপোষ মীমাংসা করেন। এই অপমানের জের ধরে আনুমানিক ২০ থেকে ২৫ দিন পর, গতপরশু সোমবার আজিজুল মুন্সী ও সহযোগী এশিয়ান টিভির সাংবাদিক পরিচয় দেয়া কুলতলা গ্রামের মৃত আবু বক্কর এর ছেলে শাহিন, বিধবা নারীকে নিশ্চিন্তপুর গ্রামের পুরুন্দপুর অভিমুখে রাস্তায় পেয়ে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী রাস্তা থেকে ধরে দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। এরপর নির্জন মাঠে নিয়ে শারীরিক নির্যতন করেন।

সোনার গহনা ছিনিয়ে নেওয়ার পর স্তির চিত্র ও ভিডিও চিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ীয়ে দেওয়ার হুমকী দিয়ে মোটা অংকের টা

কা দাবী করেন। স্থানীয় লোকজন জড়ো হলে বিধবা মহিলা কু-কর্ম করছিলো জানিয়ে সাদা কাগজে জোরপূর্বক স্বাক্ষর নিয়ে বিধবাকে ছেড়ে দেন। এ ঘটনায় আজিজুল মুন্সীকে সহোযোগিতা করেন কুলতলা গ্রামের ইকরামুল, রাজ্জাক, আকছেদুল, মামুন ও নাজমুল ‘আবদেন পত্রে আন্দুলবাড়ীয়া মিস্ত্রিরীপাড়ার সোলাইমান হোসেনকে স্বাক্ষী করা হয়।
নির্যাতনের শিকার বিধবা নারীর সাথে কথা বলে জানা যায়, কোনো রকম জীবন নিয়ে ফিরেছেন, শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে বাধ্য হয়েই চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের নিকট লিখিত আবেদন করেছেন। লিখিত আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করে চুয়াডাঙ্গা জেলার মানবিক পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন তদন্তপূর্বক আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT