রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:১৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম
তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনের মামলা ১৮ বিক্ষোভকারীর রক্তে ভিজল মিয়ানমারের রাজপথ ঝিনাইদহ হরিণাকুন্ডুতে ৭৫ বিঘা পানবরজ আগুনে পুড়ে ছাই করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে বাটাগুরবাসকা একটি কচ্ছপ ডিম পেড়েছে ২৭টি চুয়াডাঙ্গার কার্পাসডাঙ্গায় শাফা ক্যামিক্যাল কোং প্রতিষ্ঠানে জরিমানা বিপুল ভোটে শৈলকুপায় নৌকা প্রার্থীর বিজয় ঝিনাইদহ হরিণাকুন্ডু পৌরসভার নব-নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিরগণের দায়িক্ত হস্তান্তর ও গ্রহণ অনুষ্ঠিত  ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে প্রার্থীর সমর্থনে বোতলে মোড়ানো শরীর -অবশেষে সাজা ঝিনাইদহ হরিণাকুণ্ডুতে বাল্যবিয়ে দেওয়ার দায়ে কনের সম্পর্কে দাদা ও চাচাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড ঝিনাইদহে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী নিহত

অপহরণের ৭ দিনেরর মাথায় কিশোর শাকিবের লাশ উদ্ধার

দর্শনা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গার যদুপুর গ্রামে প্রবাসীর ছেলেকে কৌশলে অপহরণ। ৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী অপহরণ চক্রের সদস্যদের। ঘটনার ৭ দিন’র মাতায় গ্রামের একটি আমবাগান থেকে কিশোর শাকিবের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনার সাথে জড়িত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  রোববার ময়না তদন্ত শেষে লাশের দাফন সম্পন্ন করা হবে। তবে হত্যা নিয়ে জনমনে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন?
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার দর্শনা থানাধীন বেগমপুর ইউনিয়নের যদুপুর গ্রামের মাঠপাড়ার সৌদী প্রবাসী আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে শাকিল হোসেন ওরফে শাকিব আহম্মেদে (১৫) দু’মাস আগে গ্রামের সিদ্দিকের ছেলে সুমনের (২৪) সাথে ঝিনাইদহে রাজমিস্ত্রীর কাজে যায়। কাজ করার সুবাদে পরিচয় ঘটে সমবয়সী ক’একজনের সাথে। তাদের মধ্যে কুষ্টিয়া মিরপুরের কামিরহাট কেনাল পাড়ার কুদ্দুস মণ্ডলের ছেলে রাজিব মণ্ডল (২৪) কয়েকদিন আগে যদুপুর গ্রামের বন্ধু সুমনের বাড়িতে বেড়াতে আসে। ১৯ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৭ টার দিকে শাকিব ভাত খেতে বসবে এমন সময় একটি ফোন পেয়ে খাবার ফেলে বাড়ির বাহিরে চলে যায় সে। সে রাতে বাড়িতে না ফেরায় সকাল ১০টার দিকে ছেলেকে ফেরত পেতে হলে ৫ লাখ টাকা লাগবে বলে অপহরণ কারীররা ফোনে মুক্তিপন দাবী করে।

এমন ফোন পেয়ে পরের দিন পরিবারের লোকজন সকালে বিষয়টি দর্শনা থানা পুলিশকে জানিয়ে একটি সাধারণ ডায়রি করেন। চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলামের নির্দেশে দর্শনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহাব্বুর রহমান কাজল সাধ্যমত সকল প্রকার প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে কৌশল অবলম্বন করে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে অপহরণকারীদের গ্রেফতার ও শাকিবকে জীবিত উদ্ধার করতে অভিযান অব্যাহত রাখেন। তিনি আরও বলেন, অপরাধীদেরকে গ্রেফতার করে তাদের স্বীকারোক্তিতে  শনিবার দুপুর ১২টার দিকে যদুপুর গ্রামের মোল্লাবাড়ির আমবাগানের ভিতর মধ্যে কর্তৃনকৃত আমগাছের খড়ি এবং পাতা দিয়ে ঢেকে রাখা একটি গর্তের ভিতর থেকে শাকিলের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। রোববার ময়নাতদন্তের পর শাকিবের লাশ তার পরিবারের নিকট হস্থান্তর করা হবে। সেই সাথে ঘটনারর সাথে জড়িত মূলহোতা কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার কামিরহাট ক্যানালপাড়ার কুদ্দুস মন্ডলের ছেলে রাজিব মন্ডল (২৪) ও যশোর শার্শা উলাশি গ্রামের ঈমান আলীর ছেলে আকাশ (২৫) ও ওমর আলীর ছেলে সোয়েবকে (১৯) গ্রেফতার করা হয়েছে।যদুপুর কুমিল্লাপাড়া আকরামউলের ছেলে সিদ্দিকের বাড়িতে অপহরনকারীদের আশ্রয় দিয়েছিল বলে যানাযায়। গ্রেফতারকৃতদের আজ রোববার আদালতে সোপর্দ করা হবে। তিনি আরও বলেন, ওই রাতেই অপহরণকারিরা শাকিবকে কোমলপানী জাতীয় স্প্রিটের সাথে ২৫টি ঘুমের বড়ি খাইয়ে বাগানের মধ্যে নিয়ে যায়। পরে সেখানে তার গায়ের গেঞ্জি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। হত্যার পর থেকে মোবাইলে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করতে থাকে। অপহরণকারিরা নানা ভাবে একবার কুষ্টিয়া, একবার যশোর, একবার ঢাকায় এই ভাবে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে পুলিশকে ঘুরাতে থাকে। গ্রেফতারকৃত রাজিব একজন পেশাদার অপরাধী। শাকিলের পিতা প্রবাশে থাকে। অপহরণ পূর্বক টাকা দাবি করলে টাকা পাওয়া যাবে এমন ধারনা থেকেই এই ঘটনা ঘটিয়েছে। প্রকৃত সত্য জানতে আরও তদন্তের প্রয়োজন আছে। এদিকে শাকিলের মা শেফালী বেগম বুকভাঙ্গা আর্তনাদের মধ্যেও জানান, ঘটনার রাতে শাকিব আমার কাছে ভাত চেয়ে খেতে বসবে, এমন সময় ফোন পেয়ে বাড়ির বাহিরে চলে যায়। সেই যে গেল আর ফিরে আসেনি। পিতা প্রবাশে যাওয়ার পর থেকে সংসার চালাতে কোখনও রাজমিস্ত্রী আবার কখনও মাছ বিক্রির কাজ করে। তার বর্ষা নামের আট বছরের একটি বোন আছে। মিষ্টভাষী শাকিব এলাকার মানুষের কাছে প্রিয়পাত্র ছিলো। তাকে কেউ হত্যা করতে পারে এটা কেউ বিশ্বাস করতে চাইছে না। শাকিবের লাশ উদ্ধারের পর থেকে পরিবার জুড়ে যেমন চলছে শোকের মাতম, তেমনি গ্রামে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। সেই সাথে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলোক শাস্তির দাবিও জানিয়েছে এলাকাবাসী। তবে হত্যা নিয়ে জনমনে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন জেগেছে। আসলে কি মুক্তিপনের জন্য তাকে হত্যা নাকি নেপথ্যে রয়েছে গোপন কোন তথ্য। মা শেফালী বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT