রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মনে প্রাণে ধারণ করি- জুয়েল চেয়ারম্যান কুষ্টিয়ায় সেফটি ট্যাংকের ভিতরে ২ নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ইফতার বিতরণ মেহেরপুরের আমঝুপি গ্রামে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু চুয়াডাঙ্গায় গাঁজাসহ আটক ৩, ভ্রাম্যমাণ আদালতে জেল-জরিমানা ঝিনাইদহে ভারত ফেরত ১৪৭ বাংলাদেশী হোম কোয়ারেন্টাইনে কর্মহীন পরিবারের বাড়ীতে বাড়ীতে ইফতার সামগ্রী পৌঁছে দিলেন একদল যুবক চুয়াডাঙ্গার দর্শনা পৌরসভায় ভিজিএফ কার্ডধারীদের নগত অর্থ বিতরণ চুয়াডাঙ্গায় পূর্ব বিরোধের জেরে আ’লীগ কর্মী নজরুলকে কুপিয়ে জখম, আটক-১ ঝিনাইদহে বাম জোটের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

জীবননগরে বিচারপতি ড. হাফিজুল আলমকে নাগরিক সংবর্ধনা

আমার মাতৃভূমিতে আসায় জীবননগরবাসীর যে উচ্ছাস তা দেখে আমি অভিভূত

জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি:

জীবননগরে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট হাইকোট বিভাগের মাননীয় বিচারপতি ড. কে.এম হাফিজুল আলমকে নাগরিক সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে জীবননগর বাসীর পক্ষ থেকে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনায় জীবননগর বণিক সমিতি, দৌলৎগঞ্জ-মাজদিয়া স্থলবন্দর সিএন্ড এফ এসোসিয়েশন, প্রেস ক্লাব, সাংবাদিক সমিতি, সাহিত্য পরিষদ, কেডিকে ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা ও শিখর সমাজ কল্যাণসংস্থার পক্ষ থেকে বিচারপতি ড. কে.এম হাফিজুল আলমকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন।
নাগরিক কমিটির আয়োজনে প্রবীণ শিক্ষক শওকত আলীর সভাপতিত্বে সংবর্ধনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিচারপতি ড. কে.এম হাফিজুল আলম বলেন, দীর্ঘদিন পর আমার মাতৃভূমিতে আসায় জীবননগরবাসীর যে উচ্ছাস তা দেখে আমি অভিভূত। আমার বিচারিক কাজের মধ্যেই অধিকাংশ সময় কাটাতে হয়। যার কারণে আমাকে সাধারণ মানুষের সাথে মেশার সুযোগ সৃষ্টি হয় না বললেই চলে। আমাকে একটা নিদৃষ্ট পরিসরের মধ্যে থাকার পর গত ১৮ থেকে ২৫ তারিখ পর্যন্ত বাড়ীতে আসার কারণে এ অঞ্চলের মানুষ আমাকে যে ভালোবাসার স্বাক্ষর রেখেছেন তা দেখে আমি কৃতজ্ঞ। আমি জীবননগরের সন্তান হিসেবে আমার যতটুকু সামর্থ থাকবে আমি সেই চেষ্টা করব। আমি আপনাদের সন্তান আমার শৈশব আমার কৈশর ও জীবননগরের আলো বাতাস আর মাটির সাথে মিশে আছে। এখন প্রায়ই মনে পড়ে এই জীবননগরের মানুষের সাথে আমার সম্পর্কের কথা। আমি আপনাদেরই সন্তান তুল্য, কারো বন্ধু, আবার কেউ আমার ছোট ভাই যার কারণে নিজেকে ধন্য মনে করছি। ছোট বেলায় নিজ গ্রামে পড়া শোনা শেষে আমার সৌভাগ্য হয়েছে জীবননগর থানা পাইলট হাইস্কুলে পড়া শোনা করার। এই স্কুলের স্বনামধন্য শিক্ষক মন্ডলী আমাকে আজকের এই জায়গায় আসার অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে। আমি আমার স্কুলের শিক্ষকমন্ডলীর কাছে কৃতজ্ঞ। আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ সময় জীবননগর স্কুল। শ্রেষ্ঠ সময় এ কারণেই এই স্কুলেই আমি পেয়েছিলাম আমার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক মন্ডলীকে। এই স্কুলে আসার পরই আমার একাডেমিক ক্যারিয়ার তৈরী হয়েছিলো। যা এখনো আমার ভিতর বিদ্যমান। আমি সৌভাগ্যবান যখনই যাদের সংস্পর্শে এসেছি তারা অকাতরভাবে আমার প্রতি ভালোবাসা ও অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমি চিন্তা করছিলাম আমি বিভিন্ন ফোরামে কথা বলেছি, কিভাবে আমাদের কৃতি সন্তানদের উৎসাহিত করা যায়। কিন্তু আজকে এই অনুষ্ঠানে যে প্রস্তাব এসেছে যে, গুণীজনকে কিভাবে সংবর্ধনা দেয়া যায়। যদি প্রাতিষ্ঠানিকভাবে আমাদের সন্তানদেরকে এই সংবর্ধনা দেয়া যায় তা হলে সকলকে একটি ফ্রেমে বেঁধে জীবননগরের উন্নয়নের কাজে তাদেরকে অবদান রাখার সুযোগ তৈরী করে দেয়া যাবে। আজকের এই আলোচনায় একটি কথায় বার বার উঠে এসেছে জীবননগরের উন্নয়নে আমরা পিছিয়ে। কিন্তু একটি কথায় আমার মনে হয়েছে কমিউনিকেশন গ্যাপের কারণে আমাদের উন্নয়ন বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে। আজকে আপনারা আমাকে যে সম্মানটা দেখিয়েছেন আমি মনে করি আমাদের জীবননগরের আরো যে সন্তানরা আছেন তাদেরকে সংবর্ধনার মাধ্যমে জীবননগরকে আরো সমৃদ্ধ করা সম্ভব। আমাদের এলাকার কৃতি সন্তানদের সাথে বিভিন্ন প্রোগ্রামের মাধ্যমে যদি একত্রিত করা যায়, আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের তাহলে তারা খুবই উপকৃত হবে এবং উৎসাহিত হবে। দেশে-বিদেশে আমাদের যে সমস্ত কৃতি সন্তানেরা আছে তাদেরকেও একত্রিত করতে পারলে আমারদের জীবননগরে আরো উন্নয়ন করা হবে। এখানে আমার অনেক শিক্ষক মন্ডলী আছে, অনেক কৃতি শিক্ষার্থী আছে, আমার মনে হয়েছে দেশে-বিদেশে যে সমস্ত কৃতি সন্তানরা রয়েছে তাদেরকে একত্রিত করে মতবিনিময়ের মাধ্যমে জীবননগরের উন্নয়ন ও শিক্ষা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো সম্ভব।
চুয়াডাঙ্গা সরকারী কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক আবু সাইফ মুকুর সঞ্চালনায় সংবর্ধনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট………. সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম মোর্তুজা, সাবেক উপাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু. মো. আব্দুল লতিফ অমল, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, বিশিষ্ট সমাজ সেবক কাজী বদরুদ্দোজা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ইশা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাখী প্রমুখ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT