শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ০৬:৩৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
ঝড়-বৃষ্টিতে ম্লান হতে পারে ঈদ আনন্দ ঈদ উদযাপন যেন সংক্রমণ বাড়ার উপলক্ষ না হয়: প্রধানমন্ত্রী মেহেরপুরের গাংনীতে মাংসের দােকান উচ্ছেদ করলেন মেয়র আহম্মেদ আলী ফিলিস্তিনিদের উপর হামলার প্রতিবাদে ঝিনাইদহে মানববন্ধন গাংনীতে দােকানদারের হামলায় বাবা-মেয়ে আহত ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে বজ্রপাতে গৃহবধু শেফালীর মৃত্যু কুষ্টিয়া মিরপুর থানা পরিদর্শন করলেন পুলিশ সুপার খাইরুল আলম মুজিবনগরে সিডিপি‘র স্পান্সার শিশুদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী উপহার প্রদান গাংনীতে খাদ্য অনপোযুগী পঁচা চাল নিয়ে চালবাজি, মােটরশ্রমিকদের তােপের মুখে চাল বিতরণ বন্ধ চুয়াডাঙ্গায় ২১ বীর মুক্তিযোদ্ধা পুলিশ পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী প্রদান

পদবী পরিবর্তন-গ্রেড উন্নতিকরণের দাবীতে চুয়াডাঙ্গায় কালেক্টরেট সহকারী সমিতির সদস্যদের টানা কর্মবিরতি অব্যাহত

ষ্টাফ রিপোর্টার:

পদবী পরিবর্তন ও গ্রেড উন্নতিকরণের দাবীতে চুয়াডাঙ্গায় কালেক্টরেট সহকারী সমিতির সদস্যরা টানা কর্মবিরতি অব্যাহত রেখেছে। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত একযোগে এই কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে।
গত ১৫ নভেম্বর থেকে একযোগে জেলার চারটি উপজেলাতে এ কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে। কর্মসূচী চলাকালে প্রতিদিন দিনভর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে আন্দোলনকারীরা অবস্থান কর্মসূচী, বিক্ষোভ ও সমাবেশ চালিয়ে আসছে।
আন্দোলনকারীরা বলছেন, জেলা প্রশাসন, উপজেলা ও ভূমি অফিসে কর্মরত ১৬-১১ গ্রেডের কর্মচারীদের পদ পরিবর্তন ও বেতন গ্রেড উন্নীতিকরণের দাবিতে ২০০১ সাল থেকে আন্দোলন চলে আসছে। ২০১১ সালের ১৬ জুন প্রধানমন্ত্রী পদবী পরিবর্তন সংক্রান্ত সার সাংক্ষেপ অনুমোদনও দিয়েছে। কিন্তু গত ৯ বছরে তা বাস্তবায়িত হয় নি। এতে করে তৃর্ণমূলের কর্মচারীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। এ কারণে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে।
কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক জানান, নিয়মিত সময়সূচীর বাইরেও আমরা রাতদিন পরিশ্রম করি। আমরা চাই মাঠ প্রশাসন থেকে সাধারণ মানুষকে সেবা দিতে। কিন্তু আমাদের যৌক্তিক ও ন্যায় সংগত দাবী দীর্ঘদিন ধরে উপেক্ষিত হয়ে আসছে। এতে করে আমাদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। ৩০ নভেম্বরের মধ্যে আমাদের দাবী পূরণ না হলে কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে।
কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি ইসমাইল হোসেন জানান, ৯ বছর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনার পরও আমাদের দাবী পূরণ না হওয়ার ঘটনাটি দুঃখজনক। একই গ্রেডের প্রাথমিক শিক্ষক, সমাজ সেবা, পুলিশ বিভাগ, পরিসংখ্যান, অডিট, কৃষি ও প্রাণীসম্পদসহ জেলা প্রশাসনের অধিনে তহশীলদার ও সহকারী তহশিলদারদের গ্রেড পরিবর্তন করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের ক্ষেত্রে বিমাতা সূলভ আচারণ করা হচ্ছে।
এদিকে, জেলা প্রশাসনসহ জেলার চারটি উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের টানা কর্মবিরতির কারণে সেবা প্রত্যাশীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। সেবা প্রত্যাশীরা অনলাইন, নকল সরবরাহ, ই-সেবা, রেকর্ডসহ প্রতিদিনের দাপ্তরিক কাজে এসে হয়রানির শিকার হয়ে ফিরে যাচ্ছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com

 www.bdallbanglanewspaper.com

Design & Developed BY Creative Zoone IT