মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪২ অপরাহ্ন

শিরোনাম
মেহেরপুর জেলা ছাত্রদলের প্রতিকী অনশন পালন মেহেরপুরে গাঁজা ও বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধার,আটক-১ সিআইপি নির্বাচিত হলেন দিলীপ কুমার আগরওয়ালা জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের কার্যনির্বাহী পরিষদের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন এসএসসি-২০১৩ ও এইচএসসি-২০১৫ ব্যাচের পুনর্মিলনী ১১ ফেব্রুয়ারি: চলছে রেজিস্ট্রেশন মেহেরপুরের গাংনীতে ১২ কেজি গাঁজাসহ আটক-৩ চাঁপাইনবাবগঞ্জ দাফনের পাঁচমাস পর কবর থেকে উত্তোল করা হলো লাশ দর্শনায় “যুব সাহায্য সংস্থা ব্যাচ-৮৭”র কফি হাউজের উদ্বোধন ভেড়ামারা থানা পুলিশের অভিযানে বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্টভূক্ত ১২ জন আসামী গ্রেফতার গাংনীতে ডি বি পুলিশের হাতে দুই পলাতক আসামি আটক

চুয়াডাঙ্গার পদ্মবিলা ইউনিয়নের খেজুরা গ্রামে প্রতিবন্ধি ভাতার কার্ড করে দেয়ার নাম করে অসহায় দুস্থ গরীবদের নিকট থেকে টাকা নেয়া বন্ধ হয়নি ইমরানের

সরকারী কর্মকর্তাদের চোখে ধুলো দিয়ে নিজ ক্ষমতার বলে প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড করে দেয়ার নাম করে চুয়াডাঙ্গা পদ্মবিলা ইউনিয়নের খেজুরা গ্রামের অসহায় দুস্থ গরীবদের নিকট থেকে ৩ হাজার থেকে ৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়া বন্ধ হয়নি খেজুরা গ্রামের ইদ্রিস আলী শেখের ছেলে এসএম ইমরান আলী শেখের ।প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ডে ৯ হাজার টাকা করে দেয়া হবে প্রতি মাসে এ প্রলোভনের কথা বলে গোপনে গ্রামের অসহায় সরল সোজা দুস্থ গরীবদের নিকট থেকে টাকা আদায় করছে এই ইমরান।বিষয়টি কেউ বলতে গেলে সে বলছে সাংবাদিকরা নিউজ করে আমার কিছুই করতে পারবে না। আমি একাজ করতেই থাকবো দেখি আমার বিরুদ্ধে কে কি করে। ইমরান বলেছে প্রশাসন আমার ডান হাত বাম হাত। নিউজ করে লাভ নাই। গ্রামের অসহায় সরল সোজার লোক লজ্জার যাচাই-বাছাই না করেই নয় হাজার টাকার লোভে পড়ে ইমরানের কাছে টাকা দিচ্ছে। কে এই ইমরান, ইমরানের খুটির জোর কোথায়?। এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের পদ্মবিলা ইউনিয়নের খেজুরা গ্রামের ইদ্রিস আলী শেখের ছেলে এস এম ইমরান আলী শেখ সে দীর্ঘ দিন থেকেই বিভিন্নভাবে প্রতারনা করে অসহায় দুস্থ গরীবদের নিকট থেকে প্রতিবন্ধি ভাতার কার্ড করে দেয়ার কথা বলে খেজুরা গ্রামের প্রায় ২০ জন এবং শংকরচন্দ্র ইউনিয়নের ভান্ডারদহ গ্রামের ২ জনের নিকট থেকে ৩ হাজার থেকে ৪হাজার টাকা আদায় করেছে। যাদের নিকট থেকে প্রতিবন্ধি ভাতার কার্ড করে দেয়ার কথা বলে টাকা নিয়েছে তারা হলেন খেজুরা গ্রামের ইউনুস আলীর স্ত্রী হালিমা খাতুন, শমসের আলীর স্ত্রী সুবারন নেছা, লিয়াকত পিতা মৃত নুরমোহাম্মদ শেখ, জালাল উদ্দিন,ইউনুস শেখের স্ত্রী, জাহিদ মীর পিতা খোরশেদ মীর,আনসার সরদার, সহেল আহমেদ, হিরা, স্বামী হামাল , সাইফুল বাঙ্গাল, রোকেয়া, স্বামী মৃত টেংরা মন্ডল,কুরবান আলী,আজিম উদ্দিন। বিষয়টির দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাদিকুর রহমানের নজর দেয়ার জন্য এলাকাবাসী জোর দাবি জানিয়েছেন, এবং তদন্ত করে ইমরানের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। উল্লেখ্য এ বিষয়ে ১সেপ্টেমবর দৈনিক পশ্চিমাঞ্চল পত্রিকায় একটি সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

 

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি