বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:১১ পূর্বাহ্ন

বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন একটি সুখি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে :  কৃষকলীগ সভাপতি সমীর চন্দ্র

ষ্টাফ রিপোর্টার :

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে রক্তদান, রক্তদান, এতিমদের মাঝে মৌসুমী ফল বিতরণ, মাস ব্যাপী বৃক্ষরোপণ ও মাস্ক বিতরণ কর্মসূচীর উদ্বোধন এবং দো’আ মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা ৩ টায় চুয়াডাঙ্গা শ্রীমন্ত টাউন হলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে চুয়াডাঙ্গা জেলা কৃষক লীগ। এ উপলক্ষে জেলা কৃষক লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক জোয়ার্দ্দাদের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভার শুরুতে আমন্ত্রিত অতিথিদের আসনগ্রহণ, ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা এবং পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত পাঠ। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ্র।
প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলার কৃষকের কথা বলতেন। তিনি ছিলেন কৃষকের বন্ধু। তিনি বাংলার মানুষের স্বাধীনতার কথা বলতেন। তিনি বাংলার মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য তার জীবনের সবটুকু সময় পার করেছেন। বাংলার মানুষের জন্য কিছু করতে যেয়ে তিনি কার পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন থেকেছেন। বাংলার মানুষের জন্য তার জীবনের বেশীরভাগ সময় জেলে থাকতে হয়েছে। বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন একটি সুখি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে। তিনি বেঁছে থাকলে বাংলাদেশ সোনার বাংলায় পরিণত হতো। দেশ বিরোধি এক শ্রেণীর পাকিস্থান পন্থিরা আমাদের জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করার মধ্যদিয়ে এ দেশের উন্নয়নের ধারাকে থমকে দিতে চেয়েছিলো। কিন্তু সৃষ্টিতর্কার অশেষ রহমতে তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করে চলেছে। আজ আমাদের দেশ একটি কৃষিতে সমৃদ্ধশালী দেশ হিসাবে পরিণত হয়েছে।


আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর বিভাগের সাংগঠনিক সমন্বয়ক কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সমন্বয়ক নাজমুল ইসলাম পানু, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাবেক বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাংগঠনিক সমন্বয়ক সাগিরুজ্জামান শরীফ, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. শফিকুল ইসলাম শফি, চুয়াডাঙ্গা জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক ও চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু, চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা কৃষক লীগের আহ্বায়ক আব্দুল মজিদ দুদ, দামুড়হুদা উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, আলমডাঙ্গা উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আজিজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জিল্লুর রহমান, জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মতিয়ার রহমান মতি, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জানিফ। আলোচনা সভার সার্বিক সঞ্চালনায় ছিলেন* জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জান কবীর। আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি কৃষিবিদ সমীর চন্দ্রের হাতে ১ হাজার পিচ মাস্ক তুলে দেন তারাদেবী ফাউণ্ডেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবীর শিপলু। চুয়াডাঙ্গার পৌর পরিষদের পক্ষ থেকে প্রধান অতিথির নিকট ১ হাজার পিচ হ্যান্ড স্যানিটাইজার উপহার হিসাবে দেন পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু। আলোচনা সভা শেষে এতিম শিশুদের মাঝে পুষ্টিকর ফলমুল উপহার হিসাবে বিতরণ করা হয়। পড়ে শিল্পকলা একাডেমির মুক্ত মঞ্চে সেচ্ছায় রক্তদাণ কর্মসূচী পালন করা হয়। জেলা কৃষকলীগ নেত্রী ঝর্ণা আহম্মেদ তার নিজের শরীর থেকে রক্ত দেয়ার মাধ্যমে রক্তদান কর্মসূচী পালন করা হয়।
অপরদিকে, জেলা শিল্পকরা একাডেমি চত্বরে গাছের চারা রোপণ এবং সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণের মাধ্যমে মাস ব্যাপী কর্মসূচীর শুভ সুচনা করেন। পরে অনুষ্ঠানে আগত সকলের মাঝে একটি করে মাস্ক ও একটি করে ফলজ, বনজ ও ঔষধী গাছের চারা বিতরণ করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 DailyAmaderChuadanga.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি